সুশান্তের মৃত্যু একটি “ফুল প্রুফ মার্ডার”। পেছনে দাউদ ইব্রাহিম গ্যাং। দাবি প্রাক্তন RAW আধিকারিকের।

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু আসলে খুন এবং তা আন্ডারওয়ার্ল্ডের সাথে যুক্ত। সুশান্তের খুনের পেছনে দাউদ ইব্রাহিমের হাত রয়েছে বলে এক ভিডিওতে দাবি করেছেন প্রাক্তন RAW অফিসার এন কে সুদ। তার মতে, পুরো প্রুফ প্ল্যানিং করে সুশান্তকে খুন করা হয়েছিল। এক ভিডিওতে এই কর্মকর্তা স্পষ্টভাবে বলেছেন যে সুশান্তের চাকর, বন্ধু সন্দ্বীপ সিংহ এবং বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তী সহ তাঁর ঘনিষ্ঠরা তরুণ এই অভিনেতার সাথে কী ঘটছে তা সম্পর্কে পুরোপুরি অবগত ছিল কিন্তু তারা সুশান্ত কে রক্ষার চেষ্টার পরিবর্তে তারা তার সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করেছিল।

বলিউডের নবীন তারকা সুশান্ত সিং রাজপুতের আত্মহত্যার খবরে শিউড়ে উটেছে গোটা দেশ। অভিযোগ উঠেছে, এই মৃত্যুর নেপথ্যে রয়েছে হিন্দি ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির তাবড়দের প্রভাব এবং তাঁদের প্রভাবশালী তকমার জোর। গত কয়েকদিন ধরে সোশ্যাল মিডিয়ায় #বয়কট বলিউড, #ডোন্ট ওয়াচ স্টার কিডস ফিল্ম– এ জাতীয় স্লোগান ট্রেন্ডিং। অবসাদ না কাজের অভাব, দুইয়ের সাঁড়াশি চাপেই কি মাত্র ৩৪-এ ফুরিয়ে গেলেন প্রতিভাবান অভিনেতা? এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে হন্যে পুলিশ থেকে অভিনেতার ফ্যানেরা। এরই মধ্যে চাঞ্চল্যকর দাবি প্রাক্তন RAW অফিসার এন কে সুদের

সুদের সন্দেহ, পেশাদাররা সুশান্তকে খুন করেছে। সুদের দাবি, গত কয়েক মাসে সুশান্তকে হুমকি দেওয়া হচ্ছিল। এজন্য তিনি প্রায় ৫০ বার সিম কার্ড বদলেছিলেন। কেউ তাঁকে খুন করে ফেলতে পারে, এই আশঙ্কায় অভিনেতা গাড়িতে ঘুমোতেন বলেও তাঁর দাবি, অভিনেতার মৃত্যুর আগের দিন সিসিটিভি ক্যামেরা বন্ধ করে দেওয়া থেকে শুরু করে, ডুপ্লিকেট চাবি হারিয়ে যাওয়ার মতো অনেক তথ্যপ্রমাণ রয়েছে, এসব তথ্য প্রমাণ করে কেউ অত্যন্ত ঠান্ডা মাথায় সুশান্তের খুনের ছক কষেছে। বলিউডের রাশ যে এখনও দাউদের হাতেই রয়েছে সেকথাই জানান দিচ্ছে সুশান্তের মৃত্যুর ঘটনা।

বিহারের মুজ়ফ্‌ফরপুরে বলিউডের আট জন প্রভাবশালী ব্যক্তির নামে কেস ফাইল করা হয়েছে। সুশান্তের মৃত্যুর কারণ হিসেবে একতা কাপুর, সলমান খান, করণ জোহর, সঞ্জয় লীলা বনশালী, আদিত্য চোপড়া, সাজিদ নাদিয়াদওয়ালা, ভূষণ কুমার, দীনেশ ভিজানের বিরুদ্ধে আইনজীবী সুধীরকুমার ওঝা মামলা দায়ের করেছেন। মুম্বই পুলিশও প্রায় ৩০ জনকে জেরা করেছে সুশান্তের মৃত্যুতদন্তের ঘটনায়।

Leave a Reply