কুড়মি আন্দোলনে কার্যত স্তব্ধ একাধিক জেলা, আজও বাতিল দূরপাল্লার ট্রেন

ওয়েবডেস্কঃ

কুর্মিদের আন্দোলনের আজ চতুর্থ দিন। কুর্মি জাতিকে তফসিলি জনজাতি সম্প্রদায়ভুক্ত করা-সহ একাধিক দাবিতে ঝাড়গ্রাম, পশ্চিম মেদিনীপুর ও পুরুলিয়ায় আন্দোলন চলছে। চলছে রেল ও সড়ক অবরোধও। অবরোধের জেরে যাত্রী দুর্ভোগ চরমে। দক্ষিণ-পূর্ব রেলের একাধিক ট্রেন বাতিল করা হয়েছে। সংক্ষিপ্ত করে দেওয়া হয়েছে বেশ কিছু ট্রেনের যাত্রাপথ। পশ্চিম মেদিনীপুরের খেমাশুলিতে মঙ্গলবার থেকে রেললাইন ও ছয় নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ শুরু করে কুড়মি সামাজিক সংগঠনগুলি । সেই অবরোধের প্রায় 60 ঘণ্টা পেরিয়ে গিয়েছে । তারপরও পরিস্থিতি সেই একই ৷

তাঁদের অবরোধের মূল দাবি, কুড়মি সম্প্রদায়কে এসটি তালিকাভুক্ত করা, কুড়মালি ভাষাকে স্বীকৃতি এবং সারনা ধর্মের স্বীকৃতি । এই তিন দাবিতে কুড়মি সমাজে অবরোধ কর্মসূচি জারি রয়েছে । কিন্তু বৃহস্পতিবার দুপুরের পর হঠাৎ করে ছয় নম্বর জাতীয় সড়ক থেকে ঝাড়গ্রাম ঢোকার যে পাঁচ নম্বর রাজ্য সড়ক সেখানে লোধশুলীর মোড়ে অবরোধ শুরু করে কুড়মি সমাজের মানুষরা ।

যার জেরে দক্ষিণ-পূর্ব রেলের খড়গপুর ডিভিশনে প্রায় তিনদিন ধরে টাটা-খড়গপুর রুটে ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে । কলকাতা-মুম্বই ছয় নম্বর জাতীয় সড়ক তিনদিন ধরে বন্ধ করে রয়েছে । জাতীয় সড়কের দুপাশে সারি সারি দাঁড়িয়ে রয়েছে পণ্যবাহী লরি । নষ্ট হচ্ছে তাদের কাঁচামাল । আন্দোলন তোলার জন্য আন্দোলনকারীদের সঙ্গে পশ্চিম মেদিনীপুর ও ঝাড়গ্রাম, এই দুই জেলার প্রশাসনই কথাবার্তা চালিয়ে যাচ্ছে । কিন্তু কুড়মি সমাজের নেতৃত্বরা কোনওমতেই তাঁদের দাবি না পূরণ হওয়া পর্যন্ত অবরোধ তুলতে নারাজ ।

অপরদিকে খেমাসুলিতে রেল অবরোধের ফলে খড়্গপুর টাটা রেল লাইনে ট্রেন চলাচল বন্ধ। তাই অরণ্য সুন্দরী ঝাড়গ্রাম একেবারে স্তব্ধ হয়ে পড়েছে।

9