পুজোর আগেই বড় আশঙ্কা ঘূর্ণাবর্তের চোখ রাঙানি, দিনভর বৃষ্টির পূর্বাভাস রাজ্যে

ওয়েবডেস্কঃ

ফের একবার বাংলায় নিম্নচাপের খেল। পুজোর আগেই ফের নিম্নচাপ নিয়ে চিন্তিত রাজ্যবাসী।আবহাওয়ার মেজাজ নিয়ে বেজায় বিরক্ত আম নাগরিক। মরশুমের শুরু দিকে বৃষ্টির জন্য চাতক পাখির মতো অপেক্ষা করেছেন সাধারণ মানুষ। কিন্তু, প্রত্যাশা মেটায়নি বৃষ্টি। এদিকে গুটি গুটি পায়ে এগিয়ে আসছে পুজোর দিন। সেই সময় একের পর এক নিম্নচাপ তৈরি হওয়ার আশঙ্কা।

আদৌ পুজোয় আনন্দে মাততে পারবে তো বাঙালি! এমন সময় ফের নিম্নচাপের কথা জানাল আলিপুর আবহাওয়া দফতর। হাওয়া অফিস জানিয়েছে, ফের তৈরি হতে পারে নিম্নচাপ। সঙ্গে রয়েছে ঘূর্ণাবর্তের আশঙ্কাও। এর প্রভাব আগামী চার দিন দক্ষিণবঙ্গে ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা। উত্তরবঙ্গে বাড়বে বৃষ্টির পরিমাণ। আগামী দুদিন ভারী বৃষ্টি হবে উত্তরবঙ্গের জেলাগুলিতে।

১৮ তারিখ অর্থাৎ রবিবার উত্তর পশ্চিম বঙ্গোপসাগরে একটি ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হতে পারে। এদিকে ২০ তারিখ রয়েছে নিম্নচাপ তৈরির সম্ভাবনা। এই জোড়া ফলায় কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে আগামী চার দিন নাগাড়ে চলবে বৃষ্টিপাত।

বৃষ্টিপাতের জেরে তাপমাত্রা একধাক্কায় কমবে অনেকটাই। পুজোর আগের উইকএন্ডে কেনাকাটার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিল আম জনতা। কিন্তু, সেই আশায় জল ঢালতে চলেছে আবহাওয়ার মতিগতি। রবিবারও কলকাতায় রয়েছে ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা। বুধবার পর্যন্ত চলবে বৃষ্টিপাত। এরপর আবহাওয়ার কিছুটা বদল হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। কলকাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকতে পারে ২৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছাকাছি এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা থাকতে পারে ২৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছাকাছি। এরমধ্যে উত্তরবঙ্গের জেলাগুলিতে বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে।

দার্জিলিং, আলিপুরদুয়ার, জলপাইগুড়ি, কালিম্পংয়ে হতে পারে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিপাত। এদিকে দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার জন্য মৎস্যজীবীদের ২১ তারিখ থেকে সমুদ্রে যাওয়ার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। যাঁরা সমুদ্রে রয়েছেন তাঁদের ২০ তারিখের মধ্যে ফিরে আসার নির্দেশ দিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর।

অন্যদিকে,দুই মেদিনীপুর এবং উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনাতে আগামী চার দিন ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। কলকাতার পাশাপাশি হাওড়া, হুগলি, নদিয়া সহ দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে রয়েছে বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা। চারদিন চলবে দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া।

13