অ্যাপের লিংকে ক্লিক করলেই ফাঁকা ব্যাংক একাউন্ট, ধৃত ইঞ্জিনিয়ার

ওয়েবডেস্কঃ

শার্প ব্রেন ইঞ্জিনিয়ার। নিজের পড়া শেষ করেই রোজগারের চিন্তা তো থাকেই। তারপর যদি হয় পশ্চিমবঙ্গের তাহলে তো কথাই নেই সরকারি চাকরির। আর অন্যদিকে,বর্তমান যুগে ছোট বড়ো সকলেরই হাতে হাতে রয়েছে মুঠোফোন আর তাতে রয়েছে একাধিক জানা-অজানা application বা অ্যাপ। অনেকেই না জেনে না বুঝে অনেক সময় ক্লিক করে ফেলেন বিভিন্ন এপ্লিকেশনের লিংকে। আর এই অ্যাপের লিংকেই রয়েছে মরণফাঁদ।

সেই লিঙ্কে ক্লিক করলে করলেই ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে উধাও হয়ে যায় টাকা। আর এই ফাঁদ তৈরি করেছে বাংলারই এক তরুণ ইঞ্জিনিয়ার। আর সেই তরুণ ইঞ্জিনিয়ার কে পাকড়াও করতে গিয়ে রীতিমত চক্ষু চড়ক গাছ পুলিশের।

নদিয়ায় বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী বেতাই জিতপুর এলাকায় প্রত্যন্ত গ্রামে নিজের বাড়িতে বসেই অনলাইনের মাধ্যমে প্রতারণার কাজ চালাচ্ছিলেন ওই যুবক। বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে ওই এলাকায় হানা দেয় নদিয়া জেলার সাইবার ক্রাইম বিভাগ।ধরা পড়লেন ২৩ বছরের ওই ইঞ্জিনিয়ার।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ইঞ্জিনিয়ারিং পড়াশোনা করে নিজে অ্যাপসের মাধ্যমে মানুষের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ার নেওয়া হতো বলে অভিযোগ। প্রত্যেকের মোবাইলে বিভিন্ন নম্বর থেকে পাঠানো হত অ্যাপসের লিঙ্ক। এরপর বলা হত, ওই অ্যাপ ডাউনলোড করলেই পুরস্কার হিসেবে তিন হাজার টাকা পৌঁছে যাবে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে।

সেই মতো অ্যাকাউন্ট নম্বর দিলেই অ্যাকাউন্টে টাকা ঢোকা তো দূরের কথা, টাকা চলে যেত অন্য অ্যাকাউন্টে। এই ধরনের প্রচুর অভিযোগ জমা পড়েছিল সাইবার ক্রাইম ডিপার্টমেন্টে। তার ভিত্তিতেই তদন্তে নামে সাইবার ক্রাইম শাখার পুলিশ। ভারত বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী গ্রামে নিজের বাড়িতে বসে ইন্টারনেটের মাধ্যমে ওই যুবক সাধারণ মানুষের অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা তুলে নিত বলে দাবি তদন্তকারীদের।

ঘটনাস্থলে হানা দিয়ে ল্যাপটপ মোবাইল সিম ও প্রচুর এটিএম কার্ড উদ্ধার করা হয়েছে। এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত সন্দেহে গ্রেফতার করা হয় মোট চার জনকে।

11