ইউরোপে ফের অনির্দিষ্টকালের জন্য গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করল রাশিয়া

ওয়েবডেস্কঃ

ইউরোপে অনির্দিষ্টকালের জন্য গ্যাস সরবরাহ বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে রাশিয়ার রাষ্ট্রায়ত্ত গ্যাস সংস্থা গ্যাজপ্রম। শুক্রবার দেশটির গ্যাস সংস্থা এই ঘোষণা দেন।

গত বুধবার নর্ড স্ট্রিম ১ পাইপলাইনে কারিগরি ত্রুটি ঠিক করতে তিনদিনের জন্য জার্মানিতে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করে গ্যাজপ্রম। শনিবার পুনরায় গ্যাস সরবরাহ স্বাভাবিক হওয়ার নির্দিষ্ট তারিখ ছিল। কিন্তু নতুন কারিগরি ত্রুটির কথা বলে অনির্দিষ্টকালের জন্য গ্যাস সরবরাহ বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে গ্যাজপ্রম। সোমবার থেকেই ইউরোপে পূর্বের তুলনায় ৩৬% বৃদ্ধি পেয়ছে গ্যাসের দাম। যার জেরে বেশ সমস্যায় পড়েছেন ঐ সমস্ত দেশের বাসিন্দারা।

প্রাকৃতিক গ্যাসের দাম বৃদ্ধির ফলে বিদ্যুৎ-র দামও বেড়েছে। ২৩% বৃদ্ধি পেয়ে নতুন দাম হয়েছে ৬২৫ ইউরো। চলতি বছরের শুরুতে যা ছিল ২০০ ইউরো। এই দামই ২০২১-র শুরুতে ছিল মাত্র ৫০ ইউরো। জুলাই মাসে রাশিয়ার গ্যাস প্রদানকারী সংস্থা গ্যাজপ্রোম জার্মানির গ্যাস সরবরাহকারী পাইপে ২০% গ্যাস কম প্রদান করতে শুরু করে। সেই নর্ড স্ট্রিম-১ পাইপলাইন মেইনটেন্যান্সের জন্য বুধবার গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করে গ্যাজপ্রোম। কিন্তু শুক্রবার বলা হয় নর্ড স্ট্রিম-১ পাইপলাইন দিয়ে আর গ্যাস সরবরাহ করা হবে না। পাইপলাইনের টারবাইন বিকল হয়ে পড়েছে। কিন্তু পশ্চিমী নিষেধাজ্ঞার কারনে তা সারিয়ে তোলা সম্ভব হচ্ছে না।

গ্যাসপ্রোম জানায়, পাইপলাইনের যান্ত্রিক ত্রুটি অর্থাৎ ছিদ্র ধরা পরার কারণে শনিবার থেকে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে৷ পুরোপুরি ত্রুটি না সারিয়ে তোলা পর্যন্ত গ্যাস সরবরাহ চালু করা হবে না বলে জানানো হয়৷

রাশিয়া জানায়, দেশটির সেন্ট পিটার্সবুর্গের নিকটে পাইপলাইনের পোরতোভায়া কম্প্রেশার স্টেশনের মূল টারবাইনে ছিদ্র ধরা পড়েছে৷ টেলিগ্রামে বাদামি রংয়ের তরলে ঢাকা একটি তারের ছবি প্রকাশ করে সংস্থাটি জানায়, পাইপলাইনে ছিদ্রজনিত ত্রুটির কারণে এমন পরিস্থিতি হয়েছে৷

তার আগে গত ১৯ আগস্ট নিয়মিত রক্ষণাবেক্ষণের অংশ হিসেবে নর্ড স্ট্রিম ১ পাইপলাইন দিয়ে ৩১ আগস্ট থেকে ২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে বলে জানায় রাশিয়া৷ গত বুধবার সংস্থাটির পক্ষ থেকে বলা হয়, রক্ষণাবেক্ষণের প্রয়োজনে গ্যাস সরবরাহ তিনদিন বন্ধ থাকবে৷

তবে রাশিয়া অবশ্য পাপলাইনের রক্ষণাবেক্ষণ দীর্ঘায়িত হওয়ার জন্য পশ্চিমা দেশগুলোর নিষেধাজ্ঞাতে দায়ী করে৷

এরপর রাশিয়ার উপর আরোপিত নিষেধাজ্ঞা কিছুটা শিথিল করা হলে মেরামতের জন্য ২০ টন ওজনের একটি টারবাইন ক্যানাডায় পাঠায় রাশিয়া৷

তকে ক্যানাডার মেরামতকারী প্রতিষ্ঠান জানায়, এমন ছিদ্র টারবাইনের কর্মক্ষমতাকে ক্ষতিগ্রস্ত করবে না৷ আর এমন সমস্যার সমাধান স্টেশন থেকেই করা যায়৷ আর জার্মানির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়, নর্ড স্ট্রিম ১ পাইপলাইন সচল রাখতে পোরতোভায়া স্টেশনে যথেষ্ট টারবাইন মজুদ আছে৷

ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধের জেরেই যে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করা হয়েছে তা নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই। মস্কোর এই সিদ্ধান্তে শীতকালে ইউরোপবাসী কীভাবে গ্যাসের যোগান পাবেন তার নিশ্চয়তা নেই। যুদ্ধ শুরু হওয়ার পরে প্রতি মেগাওয়াট/ঘন্টায় ২৮.৫% দাম বেড়ে হয়েছে ২৮৩ ইউরো। ব্লুমবার্গের রিপোর্ট অনুযায়ী মে মাসের পর এই প্রথম এত দাম বৃদ্ধি পেয়েছে।

16