সরকার নেই আস্থা, ভাঙ্গন রোধে তৎপর গ্রামবাসীরাই

ওয়েবডেস্কঃ

সরকারের প্রতি আস্থা হারিয়ে নদী ভাঙ্গন রোধের কাজে হাত লাগালো চাঁদা তুলে গ্রামবাসীরাই। গ্রামের বাসিন্দারা আর্থিক ভাবে সহযোগিতা করে নদী ভাঙ্গন আটকাতে নিজের কাজ শুরু করেছেন রতুয়ার মহানন্দাটোলা বিলাইমাড়ি এলাকার নদীর তীরবর্তী এলাকার বাসিন্দারা। সরকার প্রশাসনিক কর্তারা কোনরকম কিছু উদ্যোগ নিচ্ছে না এমনই অভিযোগ কে সামনে রেখে ক্ষোভ উপড়ে দিচ্ছেন নদীর তীরবর্তী ভাঙ্গন কবলিত বাসিন্দারা। পাশাপাশি মন্ত্রী এলাকায় গেলেও কোনভাবেই স্থানীয়দের সাথে কথা বলেননি এমন অভিযোগ এলাকাবাসীর।

মালদার রতুয়ার মহানন্দাটোলা বিলাই মারি অঞ্চলের বিস্তীর্ণ এলাকা নদী ভাঙনের কবলে পড়েছে। বিঘের পর বিঘে চাষের জমি ইতিমধ্যে নদী গর্ভে তলিয়ে গেছে। এই পরিস্থিতিতে প্রশাসনিক কর্তারা পরিদর্শন করলেও ভাঙ্গন রোধ করতে কোনরকম কাজ শুরু করেনি বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর। মন্ত্রি সাবিনা ইয়াসমিন ভাঙ্গন পরিদর্শন করতে গিয়েও এলাকাবাসীর সাথে কোনোভাবেই কথা বলেননি, এমনকি লঞ্চ থেকে নিচেও নামেননি মন্ত্রী বলে অভিযোগ স্থানীয়দের।এই পরিস্থিতিতে সরকার ও তার প্রতিনিধিদের ওপর আস্থা হারিয়েছেন নদী তীরবর্তী এলাকার পরিবারগুলি।

এই পরিস্থিতিতে কশী নদীর ভাঙ্গন আটকাতে গ্রামের মানুষরাই অর্থ জোগাড় করছেন চাঁদার মাধ্যমে।সেই অর্থ দিয়ে ভাঙ্গন আটকাতে সকলে মিলেই কাজ শুরু করেছেন রতুয়ার খাসমহল, খাসারামটোলা, দিনুটোলা , নাসিরটোলা সহ আট দশটি গ্রামের মানুষ ভাঙ্গন আটকাতে কাজ চালাচ্ছে স্থানীয় লোকজন।

12