জমি বিবাদের জের, বাতিল হতে চলেছে চাঁচল কলেজের অনুমোদন! আতঙ্কে পড়ুয়ারা

ওয়েবডেস্কঃ

জমিজটে অস্তিত্বের সংকটে মালদহের চাঁচল কলেজ৷ অনিশ্চিত কয়েক হাজার পড়ুয়ার ভবিষ্যৎ৷ সংকট মেটাতে জেলা প্রশাসনের সঙ্গে শিক্ষামন্ত্রীর দ্বারস্থ হয়েছে কলেজ কর্তৃপক্ষ৷এক সময়ে ছয় একরেরও বেশি জমি ছিল কলেজের নামে।এখন রয়েছে,এক একরেরও কম জমি। ইউজিসির(UGC) নিয়ম অনুসারে কলেজের কাছে পাঁচ একর জমি থাকা বাধ্যতামূলক। তা না হলে সেই কলেজের অনুমোদন বাতিল হয়ে যাবে।

জানা গিয়েছে, চাঁচল রাজবাড়ির একাংশে পাঁচ দশক আগে কলেজ গড়ে ওঠে। ১৯৭৬ সালে চাঁচল রাজার তরফে রাজবাড়ির একাংশ দান করা হয়। যার পরিমাণ ৬.৮৬ একর। পরে রাজার অনেক জমির মতোই কলেজের ওই জমির ৬.০৯ একরও খাস হয়ে যায়। দিন কয়েক আগে কলেজের পিছনের প্রাচীর ভাঙা হচ্ছে দেখে যেন আকাশ ভেঙে মাথায় পড়ে কলেজ কর্তৃপক্ষের উপর।

কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ অজিত বিশ্বাস বলেন,শিক্ষাঙ্গন উঠে যাক,কোনো ব্যক্তি চাইনা।আমার আমাদের প্রতিষ্ঠান বাঁচাতে মরিয়া। ঘটনা নিয়ে রাজ্যের উচ্চ শিক্ষা দফতর ও জেলা প্রশাসনকে জানানো হয়েছে বলে জানান তিনি।

কলেজের অনুমোদন বাতিল হবে,এই আশঙ্কা ছড়িয়ে পড়তেই আতঙ্ক পড়ুয়ারা।

যদিও দ্রুত সংকট মেটানোর আশ্বাস দিয়েছেন গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্জ।

18