টাকার জন্যে অলিম্পিকে গোল্ড মেডেল প্রাপ্ত হকি খেলোয়াড়ের মৃতদেহ আটকে রাখল হাসপাতাল!

ওয়েবডেস্কঃ

একসময় পাকিস্তানে হকির কিংবদন্তি তারকা ছিলেন খেলোয়াড় ও প্রাক্তন অধিনায়ক মনজুর হোসেন। কিন্তু, পাকিস্তানের একটি বেসরকারি হাসপাতাল চিকিৎসার বকেয়া পরিশোধ না করায় সোমবার কয়েক ঘণ্টা ধরে মনজুর হোসেনের মরদেহ তাঁর পরিবারের লোকজনকে হস্তান্তর করতে চায়নি। এই ঘটনায় ব্যাপক ডামাডোলের পরিবেশ তৈরি হয়েছে পাকিস্তানে।

পাকিস্তানের পঞ্জাব প্রদেশের সরকারের এক অধিকর্তা বলেছেন, ‘চিকিৎসার বকেয়া পরিশোধ না করায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ প্রাক্তন হকি খেলােয়াড়ের মরদেহ কয়েক ঘণ্টা আটকে রেখেছিল। পরে পাকিস্তান হকি ফেডারেশন (পিএফএইচ) বিষয়টি সামলে নেয়। পাঁচ লাখ টাকা দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়। পরে তাঁর মরদেহ স্বজনদের হস্তান্তর করা হয়।

মনজুর হুসেন হৃদরোগের সমস্যায় ভুগছিলেন। সোমবার সকালে তাঁর স্বাস্থ্যের অবনতি হলে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। অলিম্পিয়ানকে লাহোরের শালিমার হাসপাতালে ভর্তি করা হলে সেখানে তাঁর মৃত্যু হয়। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৪ বছর। তাঁকে পাকিস্তানের সেরা হকি খেলোয়াড়দের মধ্যে গণ্য করা হয়। ৬৪ বছর বয়সী হুসেন মঞ্জুর জুনিয়র নামে পরিচিত ছিলেন। ১৯৭৬ এবং ১৯৮৪ সালের অলিম্পিকে যথাক্রমে ব্রোঞ্জ এবং স্বর্ণপদক জেতা দলের অংশ ছিলেন। তিনি ১৯৭৮ এবং ১৯৮২ সালে বিশ্বকাপ জয়ী হকি দলেরও অংশ ছিলেন। পাকিস্তান দলের হয়ে অনেক ম্যাচ জিতেছেন তিনি।

অলিম্পিক চ্যাম্পিয়নের মরদেহ নিয়ে এ হেনো ঘটনায় লজ্জার সম্মুখীন পাকিস্তান।

24