স্ত্রীর সাথে ঝগড়া! তালগাছের মাথায় ঘর বাঁধলেন স্বামী!

ওয়েবডেস্কঃ

বৈবাহিক সম্পর্কে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে নিত্যনৈমিত্তিক ঝগড়া লেগেই থাকে। সংসারের ছোটখাটো বিষয় নিয়ে কথা কাটাকাটি হওয়া অস্বাভাবিক কিছু নয়।তবে ঝগড়া যদি মাত্রা ছাড়িয়ে যায়, সম্পর্কে ক্রোধ, রোষ বাড়ে, তবে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে সম্পর্কএর মধ্যে ছেদ পড়ে। এর পরিণতি বিবাহ বিচ্ছেদ পর্যন্ত শোনা যায়। কিন্তু,স্ত্রীর ওপরে রাগ করে তাল গাছের মাথায় বাড়ি বানাতে কেউ কখনো শোনেননি।

ঘটনাটি ঘটেছে, উত্তরপ্রদেশের মাউ জেলার কোপাগঞ্জে। সেখানে রাম প্রবেশের সাথে বেশ কয়েকমাস ধরেই বনিবনা হচ্ছে না তাঁর স্ত্রীর। তাই গৃহত্যাগী হওয়া সিদ্ধান্ত রামের। কিন্তু, বসত ভিটে ছেড়ে যাবেন কোথায়? তাই রাগের বশে বাড়িরই উঠোনের কোণে লম্বা তালগাছে চড়ে বসেন তিনি। সেই যে উঠলেন, আর নামার নাম নেই। তার পর এক মাস কেটে গিয়েছে। রাম রয়ে গিয়েছেন গাছেই। ৮০ ফুট ওপরে তাঁর থাকার মতন একটা অস্থায়ী ঘর বানিয়ে ফেলেন। সেই ঘরেই গত একমাস ধরে রয়েছেন রাম প্রবেশ।

পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, খিদে পেলে রাম উপর থেকে দড়ি ঝুলিয়ে দেন। তাতে খাবার বেধে দেন পরিবারের লোকেরা। রাম দড়ি টেনে সেই খাবার তুলে নেন। শুধুমাত্র প্রকৃতির ডাকে সারা দিতেই গাছ থেকে তিনি নামেন। পরে আবার উঠে পড়েন তালগাছে। রামকে গাছ থেকে নামানোর অনেক চেষ্টা করেছেন পরিবার ও প্রতিবেশীরা। কোন কিছুতেই কাজ হয়নি। তলব করা হয়েছিল কোপাগঞ্জ ফাঁড়ির পুলিশকে। পুলিশের আবেদনও শোনেননি রাম। অগত্যা ফিরে যেতে হয়েছে পুলিশকে। রামের স্পষ্ট কথা, সংসারে অশান্তির চাইতে গাছে থাকা অনেক ভাল।

তবে,এবিষয়ে স্থানীয়দের অভিযোগ, রাম প্রবেশ গাছের ওপরে থাকার ফলে আশপাশের সব কিছুই দেখতে পান। এরফলে আশেপাশের বাড়ির মহিলাদের সম্মানহানি হচ্ছে। তাই দ্রুত তাঁকে নামিয়ে আনা হোক। গ্রাম প্রধান দীপক কুমার বলেন,”গ্রামবাসীদের কাছ থেকে অভিযোগ পেয়ে আমরা পুলিশকে জানিয়েছিলাম। কিন্তু পুলিশ এসেও কিছুই করতে পারল না, এখন আমাদের কী করার আছে!”

রামের অভিযোগ, ঝগড়া হলেই তাঁকে স্ত্রীর হাতে মার খেতে হয়। এক দিন সব সহ্যের সীমা পেরিয়ে যায়। তাই এমন সিদ্ধান্ত রামের।

20