দুর্নীতি মুক্ত ও সুস্থ বাংলার দাবিতে রায়গঞ্জের পথে শিল্পী সাহিত্যিক বুদ্ধিজীবীদের ঢ্ল।

ওয়েবডেস্কঃ

রক্তাক্ত বাংলার অবসানে পথে শিল্পী সাহিত্যিক বুদ্ধিজীবীদের ঢ্ল।
শিল্পী সাহিত্যিক বুদ্ধিজীবীদের আহ্বান।
ভবিষতের মুখের দিকে তাকিয়ে বৃত্তটাকে আরো বড় করেই প্রমান করতে হবে মেরুদণ্ড সোজা আছে।
মঙ্গলবার আকাশ জুড়ে ছিল মেঘ। আর মেঘে ঢাকা আকাশের নিচে আঁধার নামা পথে আগুন হয়ে উঠলো শিল্পী সাহিত্যিক চিকিৎসক আইনজীবী দের মিছিল।

যে মিছিলে অংশ নিলেন নাট্যকর্মী, বাচিক শিল্পী অধ্যাপক শিক্ষক শিক্ষানুরাগী থেকে উত্তর দিনাজপুর জেলার সাধারণ নাগরিকরাও। উপস্থিত শ্রমজীবী মানুষ থেকে ছাত্র-যুব-মহিলারাও।
‘সব চোরেদের মাথাটাকেও ধরতে হবে।’ এই আওয়াজে সরব হলেন হাজারো জনতা।

ভারতীয় গণনাট্য সংঘ, পশ্চিম বঙ্গ গণতান্ত্রিক লেখক শিল্পী সংঘ আদিবাসী লোক শিল্পী সংঘ- এর উদ্যোগে মোহনবাটি থেকে গান্ধী মুর্তি পর্যন্ত মিছিলে আওয়াজ ছাত্র আনিশ হত্যার ইনসাফ চাই। রায়গঞ্জ মধ্য মোহনবাটি থেকে শুরু হওয়া মিছিলের স্রোত দেখে পথ চলতি মানুষ বলে ওঠেন, মিছিল আরও লম্বা পথে চাই। গরিবের টাকা লুট হবে, কোটি কোটি টাকায় বে আইনি চাকরি বিক্রি হবে প্রতিবাদ হবে আরও জোড়ালো । গরিব মানুষ সর্বস্বান্ত হচ্ছে। শিল্পীরা এখনো বুক চিতিয়ে পথে প্রান্তরে৷ অনৈতিকতার বিরুদ্ধে আন্দোলনে শিল্পিদেরঅন্যায় ভাবে আটক করার তীব্র নিন্দা ছাড়াও
আকাশ ছোঁয়া মূল্যবৃদ্ধির বিরুদ্ধে, এলাকার শান্তি-ঐক্য ও সম্প্রীতি রক্ষার দাবিতেও সরব হয় মিছিল।

মিছিলের পুরোভাগে ছিলেন জেলার গণনাট্য আন্দোলনের সভাপতি বিশ্বনাথ সিংহ, নাট্যকর্মী নাট্যকার অশোক ব্যনার্জী, হরিনারায়ন রায় ইন্দ্রজিৎ চক্রবর্তী, সুজিত গোস্বামী, লোক শিল্পী ভানু পাল, ভানু কিশোর সরকার৷
আশিষ স রকারের বক্তব্য দিয়ে গান্ধী মুর্তির সামনে এসে মিছিল শেষ হয়।


29