পুকুর কাটা হয়েছে, কিন্তু পুকুরের অস্তিত্ব নেই।দুর্নীতি ঢাকতে জমির চরিত্র বদলের নির্দেশ জেলা প্রশাসনের!

ওয়েবডেস্কঃ


এম জি এন আর ই জি এস প্রকল্পে যা কাজ হয়েছে তা দ্রুত সেই জমি কনভারশন করে ফেলতে হবে এমনই এক চাঞ্চল্যকর প্রশাসনিক নির্দেশে শোরগোল উত্তর দিনাজপুর জেলার রাজনৈতিক মহলে।
সি পি আই (এম) উত্তর দিনাজপুর জেলা দপ্তরে সাংবাদিক বৈঠকে প্রশাসনের লিখিত অর্ডারকে তীব্র ভাষায় নিন্দা করে পার্টির জেলা সম্পাদক আনোয়ারুল হক বলেন, স্কুল কলেজে চাকরি চোর দের ধরা পরার পরে সরকার যেমন দিশেহারা তেমনই জেলা প্রশাসনে অন্ধকার জগতে।


পুকুর কাটা হয়ে গেছে, খবর প্রকাশিত অস্বিত্ব বিহীন পুকুর, খাতায় কলমে শীতগ্রাম গ্রাম পঞ্চায়েতে ২৭ লক্ষ টাকার গাছ লাগানো সেই গাছ ছাগলে মুড়িয়ে খেয়েছে। এত দিন ধরে সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত খবর কে ধামাচাপা দিতে সরব জেলা প্রশাসন অভিযোগ আনোয়ারুল হকের। সাংবাদিক বৈঠকে ছিলেন পার্টির নেতা উত্তম পাল ছাড়াও সুরজিত কর্মকার।
অসিত্ববিহীন পুকুর খবর বহুল প্রচারিত। এই খবরের জেরে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল জেলায় পরিদর্শনে এসেছে। এর আগেও এসে করণদিঘী ব্লকে একটা গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান এবং উপ প্রধানকে জরিমানা করা হয়েছে। সরকারি টাকা আত্মস্যাতে টাকা ফেরতের নিদান দেওয়া হয়েছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে। জমির চরিত্র বদলের অর্ডার এনিয়ে জেলাজুড়ে শোরগোল। নতুন এক সংযোজনে জেলা প্রশাসনের নির্দেশে যেখানে পুকুর নেই প্রকল্পে কাজ হয়েছে, বিল পাশ হয়ে গেছে সেই সব এলাকা চিহ্নিত করে দাগ নং খতিয়ান নম্বরে পুকুর কনভারশন করে দেওয়ার প্রশাসনের নির্দেশ। এবার এই কাজ করতে গ্রাম পঞ্চায়েত নির্দেশ।

এটাও একটা তুঘলকি। জমির চ রিত্র ব দলে দায়িত্ব বি এল আর ও। গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধানরা জমির চরিত্র বদলের দায়িত্বে!আবার এই কাজের যাবতীয় খরচ হবে পঞ্চায়েতে নিজস্ব ফান্ড থেকেই। অর্থাৎ চুরি ঢাকতে স্বশাসিত সংস্থা গ্রাম পঞ্চায়েত কে ঢাল করার অর্ডার? প্রশ্ন তুলে তিনি বলেন, জমির যদি চ রিত্র ব দল ক রতে হয় তবে পুকুর কাটার আগেই তা করতে পারত প্রশাসন। রায়গঞ্জ ব্লকের জগদীশপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান শিক্ষা প্রতিমন্ত্রীর স্ত্রী। গত স প্তাহে গ্রামের মানুষ জেলা শাসকের কাছে অভিযোগ জানিয়েছেন। ২১ টা পুকুর খনন না করেই কোটি কোটি টাকা আত্মস্যাত করেছেন। তাহলে মন্ত্রীর স্ত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগ খণ্ডন করতে তড়িঘড়ি আসরে নেমে পরেছে প্রশাসন?


জেলার অন্য বি ডি ও রা মৌখিক নির্দেশ দিয়েছেন, একমাত্র রায়গঞ্জ বি ডি ও লিখিত অর্ডার দিয়েছেন।
সাংবাদিক দের প্রশ্ন রায়গঞ্জ ইউনিভার্সিটিতে অবৈধ বেপরোয়া নিয়োগ হয়েছে, এব্যপারে সি পি আই (এম) এর আন্দোলন কি হবে? পার্টির জেলা সম্পাদক আনোয়ারুল হক বলেন, রাজ্যজুড়ে অনৈতিকভাবে নিয়োগ দুর্নীতি গ রু চোরদের বিরুদ্ধে লড়াই এর ময়দানে আছে একমাত্র লালঝাণ্ডা। মানুষে মানুষে বিভেদের রাজনীতির হোতা বিজেপি তৃণমূল। সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে, সম্প্রীতির লড়াই এ মানুষের অধিকার প্রতিষ্টিত করতে লড়াই এর মুখ বামপন্থীরাই আছে। আগামী রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়ে অনৈতিক ভাবে অধ্যাপক নিয়োগ, অফিসার, লাইব্রেরিয়ান, ল্যাব এটেন্ডেন্ট নিয়োগ, এমনকি প্রাক্তন প্রতিমন্ত্রী পরেশ অধিকারির মেয়ের গবেষণাতে মন্ত্রীর বসে থাকা হস্ত ক্ষেপ নিয়ে ২৩ শে আগষ্ট এস এফ আই লড়াই সাংবাদিকরা দেখতে পাবেন। সংগঠনের রাজ্য সম্পাদক আসবেন। অন্যায়ের বিরুদ্ধে এবার লড়াই হবে আইনিভাবে, পথে পথে।

42