সম্পত্তি নিয়ে বিবাদ! পরিবারের ৪ জনকে কুপিয়ে খুন করলেন গৃহবধূ

ওয়েবডেস্কঃ

একই পরিবারের চারজনের মৃতদেহ উদ্ধার হওয়ায় চাঞ্চল্য হাওড়ায় ৷ জানা গেছে এক গৃহবধূ তাঁর মেজো ভাসুর, ভাসুরের স্ত্রী-নাবালিকা মেয়ে এবং শাশুড়িকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে খুন করেন। আহত হয়েছেন দুই আত্মীয়ও। বুধবার রাতে ঘটনাটি ঘটে হাওড়া থানার MC ঘোষ লেনে। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃতরা হলেন বছর ছাপান্নর গৃহকর্ত্রী মাধবী ঘোষ, তাঁর ছেলে দেবাশিষ ঘোষ (৩৬), দেবাশিষের স্ত্রী বছর তিরিশের রেখা ঘোষ এবং তিয়াশা ঘোষ (১৩)৷

পারিবারিক বিবাদ এবং সম্পত্তির জেরেই মাধবী ঘোষের বড় ছেলের স্ত্রী শ্বশুরবাড়ির চারজনকে খুন করে বলে অভিযোগ। খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন হাওড়া থানার পুলিশ এবং পুলিশের পদস্থ কর্তারা। মৃতদেহগুলি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হাওড়া জেলা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। মৃতদের মধ্যে রয়েছেন দুই মহিলা, এক পুরুষ ও এক নাবালিকা৷

অভিযুক্ত পল্লবী ঘোষকে পুলিস আটক করতে পারলেও পলাতক তাঁর স্বামী দেবরাজ ঘোষ। উদ্ধার হয়েছে খুনে ব্যবহৃত অস্ত্র। পুলিস সূত্রে খবর, বুধবার রাত সাড়ে ১০টা নাগাদ বাড়ির ছোট ছেলে দেবরাজ ও তাঁর স্ত্রী পল্লবী সন্তানকে তালাবন্ধ করে কাটারি নিয়ে দাদা দেবাশিসের ঘরে ঢোকেন। কথা-কাটাকাটি শুরু হয় তাঁদের। আচমকা দেবাশিস, তাঁর স্ত্রী এবং ১৩ বছরের মেয়েকে এলোপাথাড়ি কোপাতে থাকেন পল্লবী। দেবরাজের মা মাধুরীদেবী বড় ছেলেকে বাঁচাতে এলে তাঁকেও কোপায় পল্লবী।

পুলিস ঘরের তালা ভেঙে দেবরাজের ৭ বছরের ছেলেকে উদ্ধার করে। পল্লবী কী কারণে এমন নৃশংস-কাণ্ড ঘটালেন তিনি, তা এখনও স্পষ্ট নয়। প্রাথমিক তদন্তে পুলিসের অনুমান, সম্পত্তি নিয়ে পারিবারিক বিবাদের জেরে এই কাণ্ড ঘটিয়েছেন অভিযুক্ত গৃহবধূ। রাত থেকে ওই বাড়ির সামনে মোতায়েন রয়েছে বিশাল পুলিস বাহিনী।

50