স্কুলে একজন ছাত্র, একজন শিক্ষক। মিড ডে মিলের নাম গন্ধ নেই। সপ্তাহে অন্তত দু তিন বন্ধই থাকে স্কুল।

ওয়েবডেস্কঃ

এক স্কুলে একজন ছাত্র একজন শিক্ষক। মিড ডে মিলের নাম গন্ধ নেই। সপ্তাহে অন্তত দু তিন বন্ধই থাকে।পরিতক্ত স্কুলে সাপের আকড়া। রায়গঞ্জ ব্লকের রামপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের সাহাপুর এফ পি স্কুলের বেহাল দশা। মেয়ের জন্যে মন্ত্রীত্ব হারিয়ে পরেশ অধিকারির জায়গায় সদ্য রাজ্যের শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী সত্যজিত বর্মনের বাড়ি থেকে ঢিল ছোড়া দুরত্বে শিক্ষার দুরাবস্থা আবার প্রমাণ ক রেদিলো সাহাপুর প্রাথমিক স্কুল।
স্কুলের পাশে বাড়ি গৃহবধূ। নাম তার গৌড়ী সরকার।


এই স্কুলে পড়াশোনা করেছেন তিনি। স্কুলের পাশেই বাড়ি। এ রাজ্যের সরকারের নীতির জন্যে এত খারাপ অবস্থা স্কুলের। একজন শিক্ষক তিনিও ঠিকঠাক আসেননা। পরিতক্ত স্কুলে কে কার শিশুকে এইভাবে পাঠাবে? পড়াশোনার জন্যে স্কুল, আর স্কুলের জন্যেই তো শিক্ষক। স্কুলের পাশে বাড়ি গৃহবধূ কল্পনা রায়ের আক্ষেপ কেউ দেখার নেই। কল্পনা রায়ের শিশু কন্যা পুজা রায় স্কুলে যাচ্ছে, বয়স হয়নি ভর্তি হয় না। ছাত্র ছাত্রী নেই। মধুরিমা রায় নামে একজন ছাত্রী চতুর্থ শ্রেনিতে পড়াশোনা করে।

মাস খানেক আগেও দুজন ছিলো এখন মধুরিমা একাই। কল্পনা রায়ের মেয়ে স্কুলে যায়, মধুরিমার সাথে খেলাধুলা করে। গ্রামের মানুষের অভিযোগ স্কুলে শিক্ষকের নিয়মিত আসা যাওয়া থাকলে অন্তত ১ কিলোমিটার দূরে একম্বা সাহাপুর প্রাইমারি স্কুলে বাচ্চাদের পাঠাতেন না। একই সংসদে ঢিল ছোড়া দুরত্বে একম্বা সাহাপুর প্রাইমারি স্কুল ৭০/৮০ জন্য ছাত্র ছাত্রীদের জন্যে মিড ডে মিলের রান্না খাবার মিলছে। পড়াশোনা হচ্ছে। স্কুলে ৪ জন শিক্ষক আছেন।


রায়গঞ্জ উত্তর সার্কেলের
অবর বিদ্যালয় পরিদর্শক কল্যানী ওরাও বলেন, স্কুলে ছাত্র ছাত্রী নেই একজন শিক্ষক পড়াশোনা পরিবেশ নেই ডি আই কে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। এই চেয়ে বেশি কিছু বলা যাবে না। শিক্ষকের অনিয়মিত সে ব্যপারে উদ্যোগ নেবেন বলে জানালেন এস আই অফ স্কুল কল্যানী ওরাও। এব্যপারে ডি আই জানান যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার জন্যে উর্ধতন কর্মকর্তাদের জানান হয়েছে।


33