পার্থ অর্পিতার ৭০০ কোটি টাকার হদিশ পেলো ইডি

ওয়েবডেস্কঃ

সম্প্রতি ইডি পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও অর্পিতার কয়েকটি সন্দেহ জনক ব্যাঙ্ক একাউন্ট হদিশ পেয়েছে। সেই সব একাউন্টের ব্যাঙ্ক স্টেটমেন্ট দেখে চক্ষু ছানাবড়া ইডি আধিকারিকদের। ২০১৬ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত যে টাকা লেনদেন হয়েছে সেটা টাকার পরিমান ৭০০ কোটির ওপরে।

এমনটাই জানা গেছে ইডি সূত্রে।এমন কি অর্পিতা ও পার্থ গ্রেফতার হওয়ার কয়েকদিন আগেও অধিক পরিমাণে টাকা লেনদেন হয়েছিল। ২০২০ সালেও এই মার্চ আরও তিনটি বড় লেনদেন হয়েছে বলেও ইডি সূত্রে খবর।যে সমস্ত একাউন্ট থেকে এই বড় পরিমাণ টাকা লেনদেন হয়েছে সেটা পার্থ অর্পিতার জয়েন্ট একাউন্ট থেকে।

অপা ইউটিলিটি সার্ভিসেস, অনন্ত টেক্সফ্যাব ও অর্পিতার নিজস্ব একাউন্ট থেকে এই টাকা লেনদেন হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। মোট ৫ টি একাউন্টের টাকা লেনদেন খুবই গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছে ইডি আধিকারিকরা।ব্যাঙ্কের স্টেটমেন্টের হিসেবে দৈনিক ২০-৩০ লক্ষ টাকা লেনদেন হয়েছে।যার মধ্যে বেশিরভাগ ক্রেডিট হয়েছে। এদিকে আবার অপার ব্যালেন্স শিট ব্যবসায়িক লেনদেন হিসেবেই দেখানো হয়েছে।এই সমস্ত টাকা যেগুলো লেনদেন হয়েছে সেগুলো নাকি রিয়েল এস্টেট, সোনার ব্যবসায়িক দের পাঠানো হয়েছে।

কিন্তু এবার প্রশ্ন হল এই টাকার উৎস কোথায়? খুব তাড়াতাড়ি এই প্রশ্নের উত্তর পেয়ে যাবে বলে মনে করছে ইডির আধিকারিকরা।আরো জানা গেছে যাদের মেধা তালিকায় নাম ওঠে নি সেই সমস্ত প্রার্থীরা নগদ টাকা নিয়ে সরাসরি যেতেন ssc অফিসে। সেই সমস্ত টাকা নাকি সংগ্রহ করত পার্থের ঘনিষ্ঠরা।তারপর তা চলে যেতো অর্পিতার ফ্ল্যাটে।

35