বীরভূমে অনুব্রত ঘনিষ্ঠ ব্যবসায়ী ও নেতার বাড়িতে হানা দিল ইডি- সিবিআই

ওয়েবডেস্কঃ

এসএসসি নিয়োগে আর্থিক দুর্নীতির কাণ্ডে তোলপাড় রাজ্য রাজনীতি গ্রেফতার করা হয়েছে প্রাক্তন শিক্ষা মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও তার ঘনিষ্ঠ বান্ধবী অর্পিতাকে একই সাথে ইতি অধিকার অর্পিতার একাধিক ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার করেছেন কোটি কোটি টাকা কেজি কেজি সোনা সহ বিভিন্ন নথি এবং বহুল পরিমাণে সম্পত্তির হদিস জানিয়ে এখনো তদন্ত জারি ইডি আধিকারিকদের। পাশাপাশি সাধারণ জনগণ তাদের ক্ষোভ উগরে দিচ্ছেন এই সমস্ত দুর্নীতিগ্রস্থ নেতা মন্ত্রীদের উদ্দেশ্যে। প্রকাশ্য রাস্তায় পার্থ চট্টোপাধ্যায় কে লক্ষ্য করে জুতো ছুড়ে মারছেন সাধারণ জনগণ।

এমন পরিস্থিতিতে ইডি বা সিবিআই-এর তদন্ত জারি রাজ্যজুড়ে। একাধিকবার তারা হানা দিচ্ছেন বীরভূমের বিভিন্ন জায়গাতেও। ইতিমধ্যেই সিবিআই ও ইডি হানা দিয়েছে অনুব্রত মণ্ডল ঘনিষ্ঠ ২ ব্যক্তির বাড়িতে। ওই নেতার নাম কেরিম খান। তিনি জেলা পরিষদের পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ। তাঁর নাম রয়েছে ভোট পরবর্তী হিংসা মামলায়। তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে গরু পাচারেরও।

সকাল সকাল তাঁদের ১০টি গাড়ি বেরিয়ে পড়ে। কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের নিয়ে দু’টি দলে ভাগ হয়ে যান আধিকারিকরা। একটি দল নানুরের দিকে যায়। অন্য একটি দল সিউড়ির দিকে চলে যায়৷

এদিকে, সল্টলেকে ব্যবসায়ী মহেন্দ্র আগওয়ালের বাড়িতে হানা দেয় সিআইডি। মঙ্গলবার হেয়ার স্ট্রিটে ব্যবাসীর অফিসে হানা দিয়েছিলেন তদন্তকারীরা। সেখান থেকে ৩ লক্ষেরও বেশি নগদ টাকা উদ্ধার করা হয়। তারপর থেকে পলাতক ব্যবসায়ী। তাঁর খোঁজে চলছে তল্লাশি।

অন্যদিকে, পাথর ব্যবসায়ী টুলু মণ্ডলের বাড়িতেও হানা দিয়েছে সিবিআই, ইডি। এই ব্যবসায়ীও অনুব্রত মণ্ডল ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত। উল্লেখ্য, মঙ্গলবার রাতেই শান্তিনিকেতনে গিয়েছিল ইডির একটি দল। তারপর ফের আজ হানা।

সূত্রের খবর, এই মুহূর্তে বীরভূম জেলাতেই হানা দিয়েছে ইডি ও সিবিআই- ২ কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার ১০ টি গাড়ি। খবর লেখা পর্যন্ত জানা গিয়েছে, কেরিম খান ও টুলু মণ্ডলের বাড়িতে তল্লাশি চালানো হচ্ছে।

21