অর্পিতার বন্ধ ফ্ল্যাটে পার্থের লক্ষ লক্ষ টাকা দামের শখের সারমেয়রা

ওয়েবডেস্কঃ

টালিগঞ্জের ডায়মন্ড সিটি সাউথ আবাসনে অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের একটি ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হয়েছে কোটি কোটি টাকা। কিন্তু ওই আবাসনেই ১৯ তলায় রয়েছে অর্পিতার নামে আরো একটি ফ্ল্যাট। সেখানেই ফ্ল্যাটে বন্দি হয়ে রয়েছে অন্তত ন’টি উন্নত প্রজাতির সারমেয়। যাদের মোট দাম চার লাখ টাকারও বেশি।

অর্পিতার তত্ত্বাবধানে থাকলেও ওই সারমেয়গুলি রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বলেই জানেন ওই আবাসনের বাসিন্দারা। উন্নত প্রজাতির ওই গৃহপালিত কুকুরগুলি কী ভাবে রয়েছে, কী খাচ্ছে, তা নিয়ে চিন্তা করার মতো অবস্থায় নেই ইডির হেফাজতে-থাকা প্রাক্তন মন্ত্রী বা তাঁর ‘ঘনিষ্ঠ’ অর্পিতা। যদিও গভীর ভাবে চিন্তিত আবাসনের পশুপ্রেমী বাসিন্দারা।

আবাসনের বাসিন্দাদের একাংশের বক্তব্য, ওই আবাসনের ১৯তলায় পাশাপাশি (১৮-ই এবং ১৮-ডি) দু’টি দু’কামরার ফ্ল্যাট রয়েছে অর্পিতার। যদিও মাঝের দেওয়াল ভেঙে দু’টি ফ্ল্যাটকে মিলিয়ে এক করে নেওয়া হয়েছিল। পাশের ফ্ল্যাটগুলির মাপ অনুযায়ী ১৯তলার ওই দু’টি ফ্ল্যাটের মোট আয়তন বড়জোর ১,৬০০ বর্গফুট। তার মধ্যেই রয়েছে অন্তত ন’টি সারমেয়। প্রতিবেশীদের বক্তব্য, ওই সারমেয়গুলির মধ্যে একটি রটওয়েলার, একটি ইংলিশ বুলডগ, একটি ফ্রেঞ্চ বুলডগ। তা ছাড়াও রয়েছে একটি করে পাগ এবং বিগ্‌ল প্রজাতির কুকুর। রয়েছে দু’টি করে ল্যাব্রাডর এবং গোল্ডেন রিট্রিভার।

ওই পোষ্যগুলির দেখভালের জন্য ইডির কাছে আবেদন জানিয়েছে একটি পশুপ্রেমী সংগঠন। তাদের ‘দুরবস্থা’র খবর শুনে শনিবার আবাসনটিতে আসেন একাধিক পশুপ্রেমী। তাঁরা ওই সারমেয়গুলির দেখাশোনার ভার নিতে চান। দেখা করতে চান আবাসন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে। যদিও আবাসনের নিরাপত্তারক্ষী ও দেখভালের দায়িত্বে থাকা কয়েকজন বলেন, ১৯ তলার ওই ফ্ল্যাটের ন’টি সারমেয় বহাল তবিয়তে, নিজেদের মতোই রয়েছে। তারা আবাসনের কাউকেই বিরক্ত করছে না। তাদের সারাক্ষণ দেখভালের জন্য দু’জন কেয়ারটেকার বা হ্যান্ডলার থাকেন।

দু’দিন অন্তর পোষ্যগুলির কাছে আসেন এক প্রশিক্ষক। তিনি পালা করে তাদের নিয়ে হাঁটতে বেরন। ওই সময় কখনও হ্যান্ডলারও থাকেন। আবাসন চত্বরে বিশেষ জায়গায় হাঁটাহাঁটি করে সারমেয়গুলি।

25