নাবালিকাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে লাগাতার ধর্ষণের অভিযোগ প্রাইমারি স্কুলের দায়িত্ব প্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত গ্রেপ্তার করেছে রায়গঞ্জ  মহিলা থানার পুলিশ।

ওয়েবডেস্কঃ

নাবালিকাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে লাগাতার ধর্ষণের অভিযোগ উঠল প্রাইমারি স্কুলের দায়িত্ব প্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে। চাঞ্চল্যকর ঘটনার অভিযোগে রাতে অভিযুক্ত শিক্ষককে গ্রেপ্তার করেছে রায়গঞ্জ  মহিলা থানার পুলিশ। অভিযুক্তের বিরুদ্ধে পকসো ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে। ধৃতকে শুক্রবার রায়গঞ্জ জেলা আদালতে তোলা হয়েছে।
জানাগেছে, অভিযুক্ত শিক্ষকের নাম নিরুপম বসাক ধৃতের বাড়ি কালিয়াগঞ্জ থানার শ্রীকলোনী এলাকায়। অভিযুক্ত ওই শিক্ষক ইটাহার থানার একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে টিআইসি পদে কর্মরত।

অভিযোগ উঠেছে, রায়গঞ্জ ব্লকের এক নাবালিকাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে রায়গঞ্জ শহরের বিভিন্ন হোটেলে নিয়ে গিয়ে বিভিন্ন সময়ে কিশোরীকে ধর্ষন করে অভিযুক্ত। জানা গেছে ঘটনা জানাজানির পরে শিক্ষককে বিয়ের জন্য চাপ সৃষ্টি করতেই বিয়ের প্রস্তাব নাকচ করে। পাশাপাশি কিশোরীকে প্রাণে মারার হুমকি দেয় বলে অভিযোগ। এরপরই রায়গঞ্জ মহিলা থানায় শিক্ষকের বিরুদ্ধে ধর্ষনের অভিযোগ দায়ের করেন কিশোরীর মা। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার রাতে রায়গঞ্জ মহিলা থানার পুলিশ বাড়ি থেকে অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করে। শিক্ষকের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৬/৫০৬, আর পসকো আইনে মামলা রুজু করেছে পুলিশ।

শুক্রবার ধৃতকে তোলা হয় রায়গঞ্জ জেলা আদালতে। ২২ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। পুলিশ সুপার মহন্মদ সানা আকতার বলেন, “বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ১৭ বছরের কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।”

36