জোর-পূর্বক হুমকি দিয়ে দেওয়াল লিখনের অভিযোগ তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে

ওয়েবডেস্কঃ

সামনেই ২১ শে জুলাই। তৃণমূল কংগ্রেসের শহীদ দিবস। রাজ্য-জুড়ে তৃণমূল কংগ্রেস নেতা-কর্মীরা এই সভার জন্য প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে। চলছে দেওয়াল লিখন ,কর্মীসভা। আর এই দেওয়াল লিখন ঘিরেই শুরু চাঞ্চল্য মালদা জেলার হরিশ্চন্দ্রপুরে।

অভিযোগ, হরিশ্চন্দ্রপুর এলাকায় বিজেপি কর্মীদের বাড়ির দেওয়াল জোর করে দখল করে ২১শে জুলাই জনসভার জন্য দেওয়াল লিখন করা হচ্ছে। তাদের দাবি সামনে পঞ্চায়েত ভোট। আর এলাকায় এর আগে প্রভাব বিস্তার করতেই তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা-কর্মীরা এলাকায় গুন্ডামি আরম্ভ করেছে। বাধা দিতে গেলে জুটছে হুমকি।

পাশাপাশি,তৃণমূলের জেলা সাধারণ সম্পাদক বুলবুল খান সুলতান নগর সহ এলাকার বিভিন্ন বিজেপি কর্মীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে জোর-পূর্বক দেওয়াল লিখন করছেন। দেওয়াল লিখন না করতে দিলে বিজেপি কর্মীদের হুমকি দিচ্ছেন বলেও অভিযোগ তাদের।

গোটা ঘটনাকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে হরিশ্চন্দ্রপুর থানা এলাকা জুড়ে। বিভিন্ন এলাকায় সন্ত্রাস শুরু করেছে বলে তীব্র ভাষায় আক্রমণ করেন জেলা বিজেপি সম্পাদক কিষান কেডিয়া

অন্যদিকে তাদের বিরুদ্ধে আনা সমস্ত অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছেন জেলা তৃণমূল সাধারণ সম্পাদক বুলবুল খান।২১ শে জুলাই জনসভা উপলক্ষে নিয়ম মাফিক ভাবেই এলাকার বিভিন্ন গ্রাম পঞ্চায়েতের বিভিন্ন দেওয়ালে দেওয়াল লিখন করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

হরিশ্চন্দ্রপুর থানা এলাকার সুলতান নগর অঞ্চলের এক বিজেপি কর্মী বুদ্ধ ঘোষ জানান তৃণমূল নেতা বুলবুল আমার বাড়িতে এসেছিল ।তারা আমার বাড়ির দেওয়ালে ওদের দলের জনসভার দেওয়াল লিখন করার জন্য আমার কাছে অনুমতি চায়। আমি ওদের দেওয়াল লিখানোর জন্য অনুমতি দিয়েছি।

যদিও সমস্ত অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছেন তৃণমূলের জেলা সাধারণ সম্পাদক বুলবুল খান। তিনি জানান আমরা এলাকার বিভিন্ন গ্রামে গ্রামে একুশে জুলাই জনসভার জন্য দেওয়াল লিখন করছি। এলাকার বিভিন্ন বাড়ির দেওয়ালে লেখা হচ্ছে। প্রত্যেকের কাছ থেকেই আমরা অনুমতি নিয়ে তবে লিখছি। বিজেপির পায়ের তলার মাটি নেই তাই ভিত্তিহীন অভিযোগ তুলছে।

16