১৯ বছরের পুরনো ঘটনা নিয়ে মমতাকে টুইটারে বিঁধলেন তথাগত

শুক্রবার দুর্ঘটনার কবলে পড়ে শুভেন্দু অধিকারীর কনভয়। ঘটনায়, অল্পের জন্য প্রাণে বাঁচেন তিনি ও তাঁর নিরাপত্তা রক্ষীরা।

সেই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে,2003 সালে মমতা ব্যানার্জীর সাথে ঘটা একটি ঘটনা ট্যুইট করেন বিজেপি নেতা তথাগত রায়।যার সাক্ষী ছিলেন স্বয়ং তিনি।

ট্যুইটারে তিনি লেখেন,
“২০০৩ সালে পঞ্চায়েত নির্বাচনের প্রচার সেরে মমতা হুগলির পোলবা থেকে সন্ধ্যাবেলা কলকাতা ফিরছেন। ছোট মারুতি গাড়ির সামনের সীটে চালকের পাশে উনি, পিছনের সীটে দুজন, তার মধ্যে একজন খন্দকার মুস্তাক আহমেদ। সিপিএমের অনিল বিশ্বাসের গাড়ি পাশ দিয়ে চলে গেল। উনি চিৎকার করে উঠলেন, “কেমন করে চলে গেল ! নিশ্চয়ই আমাদের সাইডে ঠেলে ফেলে দেবার মতলব
ছিল ! খন্দকার, তুই এখনই
বাজপেয়ীজিকে ফোন কর,… না, না, আডবানিজিকে ফোন কর…”। বেচারা খন্দকার নতমুখে হুকুম তামিল করতে লাগল। দুটো গাড়ি কিন্তু ধাক্কা লাগার ধারেকাছেও আসে নি। তারপর উনিশ বছর কেটে গেছে। খন্দকার কবরে শুয়ে কেয়ামতের অপেক্ষায়। কেবল পিছনের সীটে বসা ব্যক্তিটি এখনো জীবিত।সেটি শ্রী আমি “

এই টুইট ঘিরে ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক জোর জল্পন। কেউ মনে করছেন, তথাগত রায় বোঝাতে চেয়েছেন গাড়ি দুর্ঘটনার অজুহাত দিয়ে বিরোধী দলনেতাকে সরিয়ে দিতে চাইছেন মমতা ব্যানার্জী। পাশাপাশি তিনি বোঝাতে চেয়েছেন, শুভেন্দুকে সাবধানে থাকতে হবে। এই দুর্ঘটনা কাকতালীয় নয়। এর পেছনে রয়েছে গভীর ষড়যন্ত্র।

35