গায়েব নথি খুঁজে বের করুন : মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনকে শেষ সুযোগ হাইকোর্টের

চাকরি প্রার্থীদের নিখোঁজ উত্তরপত্র খুঁজে বের করুন। মাদ্রাসার সার্ভিস কমিশনকে তিন সপ্তাহ সময় দিল কলকাতা হাইকোর্ট।
শিক্ষক নিয়োগে দুর্নীতির মামলায় যথেষ্ট বিপর্যস্ত রাজ্য। এর মধ্যে মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনের নথি গায়েব মামলায় গায়েব নথি খুঁজে বের করতে কমিশনকে শেষ সুযোগ দিল কলকাতা হাইকোর্ট। এ নিয়ে পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছে মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশন। বিষয়টি নিয়ে সল্টলেকের একটি থানায় ডায়েরি করা হয়েছে।

এর আগের শুনানিতে মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনে নথি গায়েবের বিষয়টি সামনে এসেছিল। এই বিষয়ে যথেষ্ট ক্ষুব্ধ হয়েছিলেন কলকাতা হাইকোর্টের মাননীয় বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। এবার শেষবারের মতো তিন সপ্তাহের সময়সীমা দেওয়া হয়েছে পশ্চিমবঙ্গ মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনকে। তথ্য দিতে না পারলে বড়োসড়ো সমস্যায় পড়তে পারে পশ্চিমবঙ্গ মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশন।

উল্লেখ করা যেতে পারে মাদ্রাসার সার্ভিস কমিশনের বিরুদ্ধে শিক্ষক নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। মামলা চলাকালীন নিয়োগ পরীক্ষার সংক্রান্ত বহু তথ্য তলব করেছে কলকাতা হাইকোর্ট।

১০ জন চাকরি প্রার্থী তাদের উত্তরপত্রের কপি পাওয়ার জন্য RTI করে। কিন্ত মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশন তা না দেওয়ায় তাঁরা আদালতে মামলা করেন।
বিচারপতি অমৃতা সিনহা ১৩ জানুয়ারি কমিশনকে উত্তর পত্র দেবার জন্য ১১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সময় দেন। কমিশন ৪ জনের আনসার স্ক্রিপ্ট দেয়। বাকি ৬ জনের আনসার স্ক্রিপ্ট দিতে আরো সময় চায়। বিচারপতি কিছুদিন সময় দেন। তারপর থেকে কমিশন বারেবারে সময়সীমা বৃদ্ধি করার আবেদন করতে থাকে আদালতে। কিন্তু বাকি ছয় জনের তথ্য দিতে পারেনি কমিশন।

39