সাংসদদের ট্রেন সফরে কোটি কোটি টাকা ব্যয়,কিন্তু প্রবীণদের ভর্তুকি দিতেও নারাজ রেল

ওয়েবডেস্কঃ

২০২০ সালের মার্চ মাসে প্রবীণ নাগরিকদের জন্য সমস্ত ছাড় প্রত্যাহার করেছে ভারতীয় রেল। কিন্তু, সাংসদদের ট্রেন সফর আনন্দপূর্ণ করে তোলার জন্য কোটি কোটি টাকা ব্যয় করে ভারতীয় রেল। বিনামূল্যে যাতায়াতের সুবিধা ছাড়াও ট্রেনে সফরকালে একাধিক সুবিধা পান সাংসদরা। পাশাপাশি, প্রাক্তন সাংসদদের জন্যও ট্রেনের টিকিটে ভর্তুকি সহ একাধিক সুযোগসুবিধা অব্যাহত রয়েছে।

সরকারী নিয়ম অনুযায়ী, সিনিয়র সিটিজেন পুরুষদের জন্য ট্রেনের টিকিটে ৪০ শতাংশ এবং মহিলাদের জন্য ৫০ শতাংশ ছাড় দেওয়া হবে। কিন্তু,২০২০ সালের ২০ মার্চ মাস থেকে ২০২২ সালের ৩১ মার্চ মাস পর্যন্ত ৭.৩১ কোটি সিনিয়র সিটিজেন ভর্তুকি ছাড়াই ট্রেনে ভ্রমণ করেছেন। আর এসময় প্রবীণদের টিকিট থেকে রেল আয় করেছে ৩,৪৬৪ কোটি টাকা।

এই প্রসঙ্গে ৭৬ বছর বয়সী এক ব্যক্তি বলেন, “এই মুহূর্তে যারা কেন্দ্রে ক্ষমতায় আছে তারা সিনিয়র সিটিজেনদের কোনো মূল্যই দেয় না। বিধায়ক-সাংসদরা পেনশন, বিনামূল্যে ক্যান্টিন পরিষেবা সবকিছুই পান। কিন্তু জনগণ কিছুই পায় না। আমাদের ভর্তুকি ফিরিয়ে আনা উচিত আবার।”

পাশাপাশি, RTI এর মাধ্যমে পাওয়া নথি অনুযায়ী,গত ৫ বছরে সাংসদ এবং প্রাক্তন সাংসদদের রেলপথে ভ্রমণের ভর্তুকি দেওয়ায় ৬২ কোটিরও বেশি টাকা ব্যয় করেছে কেন্দ্র। লোকসভা সচিবালয় তরফে জানা গেছে , “রেল মন্ত্রকের কাছ থেকে ডেবিট বিলগুলি পে অ্যান্ড অ্যাকাউন্টস অফিস মারফত আসে এবং প্রক্রিয়াকরণের জন্য সেগুলো MSA শাখায় পাঠানো হয়। MSA শাখা থেকে প্রাপ্ত ডেবিট বিলের তথ্য অনুযায়ী ২০২১-২২ সালে সাংসদ এবং প্রাক্তন সাংসদদের জন্য ব্যয় হয়েছে ৩.৯৯ কোটি টাকা, ২০২০-২১ সালে ব্যয় হয়েছে ২.৪৭ কোটি টাকা, ২০১৯-২০ সালে ১৬.৪ কোটি টাকা, ২০১৮-১৯ সালে ১৯.৭৫ কোটি টাকা এবং ২০১৭-১৮ সালে ব্যয় হয়েছে ১৯.৩৪ কোটি টাকা।”

21