মাসব্যাপী আন্দোলনের শেষদিনে মিছিল WBMSRU-র

অনলাইনে দাম কম লাগছে ঠিকই , কিন্তু জীবনদায়ী ঔষধের মান বিচার কে করবে? মুমূর্ষু রোগীকে অন লাইনে ঔষধ কিনে দেওয়া হচ্ছে। সেখানে নেই কোনো ফার্মাসিস্ট। ঔষধের মান যাচাই হচ্ছে না। অন লাইনে ব্যবসা রমরমা, কর্পোরেট দের আনুগত্য দেখাচ্ছে দেশের মোদী সরকার, এই রাজ্যের সরকার পুঁজিপতিদের সহায়ক শক্তি।
অভিযোগ মেডিকেল সেলস রিপেজেন্টেটিভ ইউনিয়নের।

দীর্ঘ মাস জুড়ে আন্দোলনের শেষে শুক্রবার বড় মিছিল শুরু হয় রায়গঞ্জ এন বি এস টি সি র ডিপোর সামনে থেকে। সাধারণ মানুষের স্বার্থে অবিলম্বে স্বাস্থ্যখাতে ব্যায় করা, ঔষধ সরঞ্জামের উপর জিএসটি প্রত্যাহার করা, সরকারি সংস্থাগুলোকে পুনরুজ্জীবন করা, ঔষধের কালোবাজারি সহ ভেজাল ও নিম্নমানের ঔষধ বিক্রি বন্ধ করা, ঔষধ বিপণনের দূর্ণীত বন্ধ করা, ঔষধের মতো জীবনদায়ী সামগ্ৰী নজরদারি ও আইনি ব্যবস্থা ছাড়া অনলাইনে ওষুধ বিপণন বন্ধের দাবিতে ওয়েষ্ট বেঙ্গল মেডিক্যাল ও সেলস্ রিপ্রেজেন্টেটিভস্ ইউনিয়ন উত্তর দিনাজপুর জেলা একমাস জুড়ে ধারাবাহিক আন্দোলন করে চলেছে।

মানুষের স্বার্থে জীবনদায়ী সামগ্ৰী নজরদারি, ঔষধ বিপণনের দূর্নীতি কালোবাজারি বন্ধ করার দাবীতে, বুধবার কয়েক হাজার গণস্বাক্ষর সংগ্রহ করে প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে ডেপুটেশন দেওয়া হয় জেলা শাসকের কাছে। শুক্রবার দুপুরে ডব্লু বি এম এস আর ইউ এই আন্দোলনে প্রচুর সাধারণ মানুষও সামিল হয়েছে। পক্ষ কাল ব্যাপী জাঠা কর্মসূচী করে জনগণের নিকট এই দাবিতে ট্যাবলো মিছিল করে রায়গঞ্জ শহরে ডাক্তার পাড়া হাসপাতাল পাড়া, উকিলপাড়া এম জি রোড প্রভৃতি স্থানে পথসভা সংগঠিত হয়। এদিনের আন্দোলনেও পথি পার্শ্বস্ত পথ চলতি মানুষের রোগী আত্মীয়দের স্বাক্ষর সংগ্ৰহ করা হয় ।

ঔষধের মান নির্ধারণ ঔষধের দাম কমানোর দাবী জানালেন সংগঠনের জেলা সম্পাদক জয় দত্ত রায়। রায়গঞ্জ শহরে ঔষধ বিষয়ের এই আন্দোলন অংশ নিয়ে বিভিন্ন পথ সভায় বক্তব্য রাখেন রঞ্জন দাস, দীপঙ্কর চক্রবর্তী, গৌতম সরকার, কল্লোল ঘোষ।

12