অগ্নিপথ বিক্ষোভ কারীদের শান্ত করতে রাজনাথ সিং-এর বৈঠক, উপস্থিত তিন সেনা প্রধান

ওয়েবডেস্কঃ

মঙ্গলবার প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং-এর উপস্থিতিতেই চুক্তির ভিত্তিতে চার বছরের মেয়াদে সেনা নিয়োগের জন্য ঘোষণা করা হয়েছিল ‘অগ্নিপথ’ প্রকল্প। এই প্রকল্প ঘোষণার পর থেকেই প্রতিবাদ বিক্ষোভে উত্তাল দেশের বিস্তীর্ণ এলাকা। সবথেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বিহার। শুধুমাত্র এই রাজ্যের ভারতীয় রেলের ক্ষতির পরিমাণ ২০০ কোটি টাকা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গুলিও চালাতে হয়েছে তেলাঙ্গনায়।

কমবেশি দেশের প্রায় প্রতিটি রাজ্যেই অগ্নিপথ প্রকল্পের প্রতিবাদে আন্দোলন চলছে। এই অবস্থায় গোটা প্রকল্পকে দ্রুত রোলআউট করা ও বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার জন্য শনিবার প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং বৈঠক করেন দেশের তিন বাহিনীর শীর্ষ কর্তাদের সঙ্গে। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বিমান বাহিনীর প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল ভিআর চৌধুরী, নৌবাহিনীর প্রধান অ্যাডমিরাল আর হরি কুমার ও সেনার বাহিনীর ভাইস জেনারেল বিএস রাজু।

এদিন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক জানিয়েছে, অগ্নিপথ প্রকল্পে কাজের অভিজ্ঞতা থাকা অগ্নিবীরদের মধ্যে থেকে ১০ শতাংশকে অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে সিআরপিএফসহ অন্যান্য নিরাপত্তা বাহিনীতে কাজের সুযোগ দেওয়া হবে।আগামী ২৪ জুন থেকে বায়ু সেনার নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হচ্ছে বলে জানিয়ে দিয়েছেন এয়ার চিফ মার্শাল ভিআর চৌধুরী। আগামী দুই এক দিনের মধ্যেই প্রাথমিক অনুশীলন শুরু হবে। ভারতীয় নৌবাহিনীতেও দ্রুত নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হবে বলেও জানিয়েছেন এই প্রবীন সেনা কর্তা। আগামী বছর জুন মাসের মধ্যে সেনা বাহিনীর তিনটি স্তরেই এই প্রকল্পের অধীনে নিয়োগের প্রথম ব্যাচকে আপারেশনার ও অ-অপারেশনাল উভয় ভূমিকায় মোতায়েন করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।

35