অভিমানে আত্মঘাতী ইটাহারে একাদশ শ্রেনীর ছাত্রী!

ওয়েবডেস্কঃ

এক ছাত্রীর গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মঘাতী হওয়ার ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়ালো ইটাহারে। এদিন ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর দিনাজপুর জেলার ইটাহার থানার আবাদপুর এলাকায়। জানাযায়, আবাদপুর গ্রামের বাসিন্দা বেবি নাজমিন এই বছর বালিহারা খয়ের বাড়ি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক পরিক্ষা দিয়েছিল।

গতকাল রাতের খাবার খেয়ে মায়ের সাথে ঘুমাতে যায় সে। কিন্তু সকালে উঠে মেয়ে ঘরে না থাকায় এদিক ওদিক খোঁজাখুজি শুরু করে মা। কিছুক্ষণ পর দেখে পাশের ঘরে মেয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলে আছে। গ্রামের মেয়ের আত্মঘাতী হওয়ার খবর ছড়িয়ে পরতেই চাঞ্চল্য ছড়ায় এলাকায়। স্থানীয় সূত্রে জানাযায়, মৃত বেবি নাজমিনের বাবা প্রায় ১৫ বছর আগে মারা যায়। বর্তমানে বাড়িতে আছে তার মা ও ভাই।

বাবা মারা যাওয়ার পর থেকে মা কষ্ট করে সাংসারিক আর্থিক অনটনের মধ্যেও এক ছেলে ও এক মেয়ের পড়াশুনা চালাচ্ছিল। বেবি নাজমিন এই বছর মাধ্যমিক পরিক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে একাদশ শ্রেনীতে ভর্তিও হয় কিন্তু পরিক্ষার রেজাল্ট ভালো হয় নি তার। ফলে মেয়েকে মাঝে মধ্যে বকাবকি করত মা।

আত্মঘাতী হওয়ার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ইটাহার থানার পুলিশ গিয়ে দেহ উদ্ধার করে ইটাহার গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে আসলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষনা করে। পুলিশ মৃতদেহ ময়না তদন্তের জন্য রায়গঞ্জ জেলা হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।
প্রাথিমিক ভাবে পুলিশ ও স্থানীয় বাসিন্দা অনুমান মাধ্যমিক পরিক্ষার রেজাল্ট ভালো না হওয়ায় মায়ের বকুনির জেরে অভিমানে আত্মঘাতী হয়েছে ওই মাধ্যমিক পরিক্ষার্থী মেয়ে বেবি নাজমিন। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

51