ফের কালীঘাটে সিবিআই হানা জেরার মুখে অভিষেক পত্নী

আরো একবার সিবিআই জেরার মুখে পড়লেন তৃণমূল যুবরাজ অভিষেক পত্নী রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায় নারুলা । কয়লা পাচার সংক্রান্ত স্ক্যামে এই নিয়ে দ্বিতীয়বার জেরা করা হচ্ছে তাঁকে। এই মামলার রুজিরার সম্পত্তি নিয়ে আগেও কালীঘাটে হানা দিয়েছিলেন সিবিআই অফিসারেরা। আজ আবার জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাড়ে ১১টা নাগাদ হরিশ মুখার্জি স্ট্রিটের অভিষেক-রুজিরার বাড়ি ‘শান্তিনিকেতনে’ পৌঁছন সিবিআইয়ের ৮ সদস্যের এক দল। তাতে মহিলা আধিকারিকরাও রয়েছেন বলে জানা গেছে।

প্রসঙ্গত তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদকের স্ত্রীকে গত বছরের মার্চ মাসে জিজ্ঞাসাবাদ করেছিল সিবিআই। সেই বয়ান সন্তোষজনক হয়নি বলে খবর কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার সূত্রে। আর সেই কারণেই আজ ফের জেরাপর্ব চলছে বলে জানা গিয়েছে। 

গত বছর মার্চ মাসে সেই ‘শান্তিনিকেতন’ বিল্ডিং অর্থাৎ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে হাজির হয়ে প্রশ্ন করা হয়েছিল তাঁকে। সে সময় তাঁর অর্থাৎ রুচিরা বন্দোপাধ্যায়ের বয়ানে অসঙ্গতি ছিল বলে সিবিআই সূত্রে খবর। সেই কারণেই আজ ফের জিজ্ঞাসাবাদ। গত দেড় বছরে কয়লা পাচার কাণ্ডে রুজিরাকে দিল্লির ইডি সদর দপ্তরে হাজির হওয়ার জন্য একাধিকবার নোটিস দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু করোনা কালে দুই শিশুসন্তানকে কলকাতায় রেখে তিনি হাজিরা দিতে পারবেন না বলে জানিয়ে দেন। ওই মামলায় ইতিমধ্যে অভিষেক অবশ্য দুইবার কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার মুখোমুখি হয়েছেন। এমনকি দিল্লির পরিবর্তে কলকাতার অফিসে জিজ্ঞাসাবাদের আবেদন নিয়ে দিল্লি হাই কোর্টেও যান অভিষেক-রুজিরা। দিল্লি হাই কোর্ট সেই আবেদন খারিজ করার পরে একই আবেদন নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন তাঁরা। তখন কলকাতার অফিসে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ দেয় সর্বোচ্চ আদালত।

কয়লা পাচার মামলায় ২০২১ সালের মার্চে অভিষেকের বাড়িতে গিয়ে রুজিরাকে প্রশ্ন করেছিল সিবিআই। সে-বার রুজিরা বোন মেনকা গম্ভীরকেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছিল। মেনকার স্বামী ও শ্বশুরকে নিজাম প্যালেসে ডেকে প্রশ্ন করা হয়। এবার আবার শান্তিনিকেতনেই হানা দিলেন কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার আধিকারিকরা। যদিও এখনো পর্যন্ত এবিষয়ে বিস্তারিত আর কিছু জানা যায়নি। তবে বারংবার এই জেরা পর্বে স্বাভাবিক ভাবেই প্রবল অস্বস্তির মুখে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস।

36