বন্দরের আদি কালী মাতার বিগ্রহ প্রতিষ্ঠা দিবস পালন

প্রাচীন মন্দিরের প্রতিটি ইটে গেঁথে আছে ইতিহাস। অজস্র কাহিনীর ভার বইছে পাঁচশ বছরের পুরোনো উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জের বন্দর আদি কালীবাড়ি। কথিত আছে সাধক বামাখ্যাপার বংশধরের হাত ধরে এই মন্দির প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রাচীন রীতি মেনেই রায়গঞ্জের বন্দর আদি কালীবাড়ির প্রতিষ্ঠা দিবসে শ্যামা মায়ের পুজো হয়।

ইংরেজির ১৮০৯ সাল এবং বাংলার ১২১৬ সালে উত্তর দিনাজপুরের মহারাজার আমলে সাধক জানকীনাথ চট্টোপাধ্যায়ের হাত ধরে জৈষ্ঠ্যমাসের শুক্ল পক্ষে দশমী তিথিতে আজকের দিনে কষ্টি পাথরের মায়ের মূর্তি প্রতিষ্ঠা হয় । সাধক বামাখ্যাপার বংশধরেরাই নাকি শুরু করেছিলেন পুজো। বংশানুক্রমে তাঁরাই আদি কালীমন্দিরের সেবাইত। প্রতিবছর দশহরা গঙ্গাপুজোর দিনে মন্দিরে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষ্যে মায়ের পুজো হয়। এমনটাই জানালেন মন্দিরের সেবাইত মৃত্যুঞ্জয় চট্টোপাধ্যায়।

প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষ্যে মায়ের আজ বাৎসরিক পুজো। উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলার পাশাপাশি বাংলাদেশ থেকে ভক্তরা পুজো দিতে এসেছেন। আজ সকাল থেকে পুজো শুরু হয়। সারাদিন ধরে চলে পুজো ও হোম-ষজ্ঞ। রাতে প্রসাদ বিতরণ করা হবে। বাৎসরিক পুজো উপলক্ষ্যে এদিন সকাল থেকে মন্দির প্রাঙ্গণে ভিড় লক্ষ্য করার মতো।

38