জ্ঞানবাপী মসজিদ বিতর্কে উল্টো সুর আরএসএস প্রধানের

ওয়েবডেস্কঃ বারাণসীর জ্ঞানবাপী মসজিদে শিবলিঙ্গ পাওয়ার দাবির পর সেই জায়গা সিল করার নির্দেশ জারি করেছে আদালত। বারাণসী আদালত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটকে নির্দেশ দিয়েছে যে, শিবলিঙ্গটি যেখানে প্রাপ্ত হয়েছে সেই স্থানটি সিল করে দেওয়ার এবং সেখানে কাউকে যেতে না দেওয়ার। এর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে জেলা প্রশাসন ও সিআরপিএফকে।

হিন্দু পক্ষের মতে, ভাজুখানা থেকে জল নিষ্কাশনের সঙ্গে সঙ্গে সবাই আনন্দিত হয়েছিল, কারণ সেখানে ১২.৮ ফুট ব্যাসের একটি শিবলিঙ্গ ছিল। বারাণসীর জ্ঞানবাপী মসজিদ সমীক্ষা চলাকালীন, হিন্দু পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে যে সোমবার নন্দীর সামনে প্রায় ১২ ফুট ৮ ইঞ্চি লম্বা শিবলিঙ্গ পাওয়া গেছে।

কিন্তু , সাম্প্রতিক বিতর্কের মাঝে সম্পূর্ণ উলটো সুরে কথা বললেন রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের প্রধান মোহন ভাগবত। বৃহস্পতিবার নাগপুরে আরএসএসের এক অনুষ্ঠানে বক্তৃতা দিতে গিয়ে তিনি প্রশ্ন তোলেন, ”সমস্ত মসজিদে শিবলিঙ্গ খোঁজার প্রয়োজন কী? রোজ রোজ নতুন করে বিতর্ক তোলা উচিত নয়। জ্ঞানবাপী নিয়ে আমাদের আলাদা ভক্তি থাকতেই পারে, তাই বলে সমস্ত মসজিদে শিবলিঙ্গের অস্তিত্ব খুঁজে বেরিয়ে, জিগির তোলা অনুচিৎ।”

তার আরও বক্তব্য, ”ইতিহাস বদলানো যায় না। মনে রাখতে হবে, আজকের কোনও হিন্দু বা মুসলিম তা রচনা করেনি। বহু বহু যুগ আগে তা তৈরি হয়েছিল। বহিরাগতদের এ দেশ আক্রমণের মাধ্যমে ইসলাম প্রবেশ করেছিল। শুধু হিন্দুই নয়, স্বাধীনতাকামীদের মনোবল ভাঙতে উপাস্য দেবতাদের মূর্তি, মন্দির ধ্বংস করা হয়েছিল।” এই বক্তব্য স্পষ্টতই প্রমাণ হয় অস্তিত্ব প্রমাণের এই ‘অতি সক্রিয়তা’ তিনি মোটেই ভালভাবে নিচ্ছেন না।

সংঘ প্রধানের এহেন বক্তব্য ঘিরে স্বভাবতই আলোচনা তুঙ্গে।

47