কেকে মৃত্যুতে বিস্ফোরক গেরুয়া শিবির, হত্যা করা হয়েছে বলে মন্তব্য দিলীপের

ওয়েবডেস্কঃ

সঙ্গীতশিল্পী কেকে মৃত্যুতে শোকোস্তব্ধ গোটা দেশ। কিন্তু, এর মধ্যেই এই মৃত্যু ঘিরে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক জল্পনা। গত ৩১শে মে সন্ধে সাতটায় কলকাতার নজরুল মঞ্চে গান করতে ওঠেন কেকে এবং বেশ কয়েকটি গান করার পরে অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি । এরপর তার বেশ কিছুক্ষণ বাদে তার মৃত্যুর খবরে শোকোস্তব্ধ হয়ে পড়ে সংগীতজগতের পাশাপাশি গোটা দেশ। সঙ্গীত শিল্পীকে শেষশ্রদ্ধ জানাতে বুধবার গান স্যালুট দিয়েছে রাজ্য সরকার। শ্রদ্ধা জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী-সহ অন্যান্য মন্ত্রীরা

তাঁর মৃত্যু নিয়ে ইতিমধ্য়ে তৈরি হয়েছে বিতর্ক। অনুষ্ঠান আয়োজকদের বিরুদ্ধে নানান অভিযোগ উঠছে। এই পরিস্থিতিতে বিস্ফোরক অভিযোগ করলেন দিলীপ ঘোষ। রাজ্য বিজেপির প্রাক্তন সভাপতির দাবি, “কেকে-কে চক্রান্ত করে মেরে ফেলা হয়েছে। এটা হত্যা। অপরাধবোধ থেকেই গান স্যালুট দিয়েছে সরকার।”

রাজ্য প্রশাসনের এর এক হাত নিয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন, “একটা লোককে হত্যা করা হল। অমিত শাহ বলেছিলেন, বাংলায় গেলে মারা যেতে পারেন। বাংলায় এসে লোকটা বেঘোরে মারা গেলেন। এটা কলেজের অনুষ্ঠান নয়, তৃণমূল পার্টির অনুষ্ঠান। ওরা লোক জড়ো করেছে। নেতারা আয়োজন করেছেন। ওকে দিয়ে জোর করে একের পর এক গান গাইয়েছে। উনি পারছিলেন না। চলে যেতে চাইছিলেন। চক্রান্ত করে মেরে ফেলা হয়েছে। এটা হত্যা।”

যদিও দিলীপ ঘোষের মন্তব্য মানতে নারাজ তৃণমূল। বিজেপি নেতার দাবি খারিজ করে সৌগত রায় জানান, “কলেজ ফেস্টের সঙ্গে রাজনীতির কোনও যোগ নেই। কেকে‘র মৃত্যু নিয়ে দিলীপ ঘোষ মিথ্যা কথা বলছেন।” সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তীও কেকে’র মৃত্যুকে ‘পরিকল্পনামাফিক খুন’ বলে মানতে নারাজ। তাঁর কথায়, “দিলীপ ঘোষ এমন কথা বলেন যার অর্থ নেই। কীভাবে কেকে’র মৃত্যু হল তা তদন্তসাপেক্ষ। এখনই এ বিষয়ে কিছু বলা উচিত নয়।

39