বাইকের দাবি না মেটায় খুন গৃহবধূকে! পলাতক স্বামীসহ শ্বশুরবাড়ির লোক

ওয়েবডেস্কঃ

বছর ছয়েক আগে রায়গঞ্জের পরিতোষ সরকার এর সাথে বিয়ে হয় ২৪ বছর বয়সী লিপিকা অধিকারীর। কিন্তু বিয়ের পর থেকে শুরু হয় অকথ্য অত্যাচার। একটি বাইকের দাবি করে প্রায় প্রতিদিনই অশান্তি লেগেই থাকত বলে অভিযোগ ওই গৃহবধূর বাবা বিশ্বনাথ অধিকারীর। অভিযোগ মারধর করে সারা শরীরে কালশিটে দাগ বসে যায় ওই গৃহবধূর শরীরে।

এই ঘটনার অভিযোগও দায়ের করা হয় রায়গঞ্জ মহিলা থানায়। কিন্তু তারপরেও ওই গৃহবধূকে বুঝিয়ে পারস্পরিক সম্মতির নিয়ে পাঠিয়ে দেওয়া হয় তার শ্বশুরবাড়িতে।

ওই গৃহবধূর বাবার অভিযোগ রবিবার সন্ধ্যে সাতটা নাগাদ মেয়েকে দিয়ে আসেন তার শ্বশুরবাড়িতে এবং তার ঠিক পরের দিন অর্থাৎ সোমবার দুপুর দুটো নাগাদ ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে মেরে ফেলা হয় তার মেয়েকে। ঘটনার খবর মেয়ের শ্বশুর-বাড়ির প্রতিবেশীদের কাছ থেকে ফোনে তিনি জানতে পারেন বলে জানালেন ওই গৃহবধূর বাবা বিশ্বনাথ অধিকারী।

ঘটনায় রায়গঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে ওই গৃহবধূর স্বামী পরিতোষ অধিকারী শ্বশুর-শাশুড়ি সহ শ্বশুরবাড়ির মোট ছয়জন সদস্যদের বিরুদ্ধে। যার মধ্যে রয়েছেন ওই গৃহবধূর স্বামীর জ্যাঠতুতো ভাইয়েরাও। যদিও ঘটনার পর থেকেই পলাতক স্বামী সহ শ্বশুর বাড়ির সকলেই।

ঘটনায় নিজের মেয়ের খুনিদের কঠোর থেকে কঠোরতর শাস্তির দাবি জানিয়েছেন ওই গৃহবধূর বাবা।

150