সাসপেন্ড হয়েও শিক্ষা মেলেনি ডিলারের, রেশনে দুর্নীতি নিয়ে চক্ষু চড়কগাছ তদন্তকারীদের

ওয়েবডেস্কঃ

রেশনের দুর্নীতি, চালডাল গম ইত্যাদি কম দেওয়া নিয়ে সাধারণ গ্রাহকের অভিযোগের ভিত্তিতে মাসখানেক আগেই সাসপেন্ড করা হয় হরিরামপুর শ্যামদাস গ্রামের র‍্যাশন ডিলার রামচরণ সিং কে।

সম্প্রতি খাদ্য দপ্তর সাসপেনশন উঠিয়ে নিয়েছে ঠিকই, কিন্তু, তারপরও শিক্ষা মেলেনি রেশন ডিলারের। ফের নিজের রূপে ফিরে এসেছেন এই দুর্নীতিগ্রস্থ ডিলার।

বিডিও অফিসের আধিকারিকরা তাঁর র‍েশন দোকান পরিদর্শন করতে আসছেন খবর পেয়েই গোডাউনের দায়িত্ব পরিচিত একজনকে দিয়েই চম্পট দেয় ডিলার বাবু।

জানা গেছে, মাস ছয়েক আগে পঞ্চায়েতের গ্রাহকদের দেবার জন্য চাল তুলেছিলেন স্টকিস্টের কাছ থেকে। কিন্তু কোন কিছুরই স্টক মেলাতে গিয়ে কালঘাম ছুটলো তদন্তকারী দলের। সরকারের দেওয়া চাল, গম, আটা প্রায় পুরোটাই লোপাট করে দিয়েছেন নির্বিকারে। নেই কোনও স্টক রেজিস্টার । তদন্তে নামেন হরিরামপুর ব্লকের বিডিও পূজা দেবনাথ সহ ব্লকের অন্যান্য আধিকারিকরা।

পাশাপাশি, একই ঘটনা দেখা গেল হরিরামপুরের আরো দুটি রেশন ডিলারের ঘরে। হরিরামপুর বাজারের র‍্যাশন ডিলার সঞ্জীব রায় ও মুস্কিপুর গ্রামের র‍্যাশন ডিলার মীরা দাস। অভিযোগ, তারাও দেখাতে পারেননি কোন স্টক রেজিস্টার। গোডাউনে এই মুহূর্তে প্রায় ৫০০ কুইন্টালের বেশি চাল, গম, আটা থাকার কথা। কিন্তু গোডাউনে কোনও খাদ্যদ্রব্য স্টক দেখতে পাননি বিডিও পূজা দেবনাথ।

হরিরামপুরের খাদ্য দপ্তরের আধিকারিক শুভাশিস সন্যাসী বলেন, বর্তমানে পুরো ব্যবস্থা অনলাইন হয়ে যাওয়ার দরুন গ্রাহকদের চাল, ডাল, গম এখন চুরি করার উপায় নেই কিন্তু তবুও গ্রাহকদের অভিযোগের ভিত্তিতে সমস্তটা তদন্ত করা হবে বলেও জানান তিনি।

99