নাগর নদীর ভাঙ্গন প্রতিরোধের কাজ শুরু হল আজ

ওয়েবডেস্কঃ

নাগর নদীর ভাঙ্গনের প্রতিরোধ এর কাজ উদ্বোধন হলো বুধবার। এদিন ধাওতা গ্রামের উপস্বাস্থ্য প্রাঙ্গণে আনুষ্ঠানিক ভাবে নদী ভাঙ্গন প্রতিরোধের কাজ উদ্বোধন করেন করণদিঘীর বিধায়ক গৌতম পাল।

করণদিঘী ব্লক সীমানার উপর দিয়ে বয়ে গেছে নাগর নদী সহ একাধিক নদী। নাগর নদীর ক্ষয় ও বহন কার্যের ফলে করণদিঘী থানার রসাখোয়া – ২ নং গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার ধাওতা গ্রামের বহু চাষের জমি চলে গেছে নাগর নদীর গর্ভে। গত কয়েক বছর ধরে নদী ভাঙ্গন ঠেকে এসেছে ধাওতা গ্রামের প্রাথমিক স্কুল ও উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ৫০ মিটার দূরত্বে।

ফলে আতঙ্কে দিন যাপন করতে হয় ধাওতা গ্রামবাসীদের। এই নিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত গ্রামবাসীরা দ্বারস্থ হয় করণদিঘী ব্লক প্রশাসনের কাছে। করণদিঘীর বিধায়ক গৌতম পাল জানান, এবারের গত বিধানসভা নির্বাচনে ভোট প্রচারে এসে নাগর নদীর ভাঙ্গন পরিদর্শন করে ভাঙ্গন প্রতিরোধ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম।

এবার ধাওতা গ্রামে প্রায় ৯০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে ৮০০ মিটার নাগর নদীর পাড় লোহার জাল ও বোল্ডার দিয়ে বাঁধানোর কাজ শুরু করা হলো। বর্ষার কারণে নদী ভাঙ্গন প্রতিরোধ করার জন্য এজেন্সিকে দ্রুত কাজ শেষ করার নির্দেশ দেন করণদিঘীর বিধায়ক তথা উত্তরবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহণ সংস্থার ভাইস চেয়ারম্যান গৌতম পাল। এছাড়াও এদিনের শুভ সূচনায় উপস্থিত ছিলেন করণদিঘীর বিডিও নিতিশ তামাং, পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি মোঃ কামরুজ্জামা, তৃণমূলের ব্লক সভাপতি ওহাব আলি , পঞ্চায়েত প্রধান ও এলাকার বিশিষ্ট সমাজসেবী সহ অন্যান্যরা। নদী ভাঙ্গন প্রতিরোধে কাজে আপ্লুত ধাওতা গ্রামবাসীরা।

127