কুলিক রোববার গল্প : স্কুলছুট-ই

বিনোদ ঘোষাল

রাস্তা দিয়ে সন্ধেবেলা হাঁটছি। একটা টিভির দোকানের সামনে অনেক ছেলে-মেয়ের ভিড়। সকলেরই পরনে নানা স্কুলের ইউনিফর্ম। সকলেই খুব উদ্বিগ্ন হয়ে টিভির দিকে তাকিয়ে। ক্রিকেট বা ফুটবলের ফাইনাল ম্যাচ থাকলে পথচলতি মানুষ যেভাবে টিভির দোকানের সামনে ভিড় করে থাকে, তাদের চোখে মুখে যেমন টেনশন দেখা যায় বাচ্চাগুলোর চোখমুখেও তাই।
টিভিতে খেলাই দেখাচ্ছিল তবে একটি বাংলা নিউজ চ্যানেলে। সংবাদপাঠক খেলার ধারাভাষ্যকারের স্টাইলেই বলছিলেন- ‘ গরম কমছে…আরও কমছে…মনে হচ্ছে গরমের ছুটি পিছিয়েই যাবে, বাচ্চারা আবার স্কুলে ফিরতে পারবে…স্টুডেন্টদের মধ্যে প্রবল উত্তেজনা…তাপমাত্রা একেবারে স্বাভাবিক…স্কুল খুলল…খুলল….কিন্তু না এবারেও স্কুল খুলল না বরং যারা খুলে রেখেছিলেন তারা রেফারির কাছে হলুদ কার্ড দেখলেন…’
বাচ্চাগুলো টিভির দোকান থেকে সরে গিয়ে অন্ধকার রাস্তা দিয়ে মাথা নিচু করে বাড়ি ফিরতে লাগল। ওদের কেউ কেউ স্কুলব্যাগগুলোকে রাস্তাতেই রেখে চলে যাচ্ছিল। কয়েকটা নেড়িকুকুর ব্যাগগুলোকে শুঁকে ভেতরে কী রয়েছে বোঝার চেষ্টা করছিল।

9