কুলিক রোববার কবিতা: মন্ডলবাড়ি

চিরঞ্জীব হালদার

যে সাতমহলা বাড়ির গোধুলী সন্ধ্যা ভরে থাকতো
বেহালার ধুন
সমস্ত আমলকী গাছেরা অভিবাদন জানতো
ছোটমেয়ের লক্ষীমন্ত উদাসীন অপেক্ষাকে
যে সেগুনমঞ্জরী থেকে নেমে আসতো পেঁচাদের প্রথম প্রহরের কলরব
আমার সমস্ত পথ সেই অলিখিত উত্তর পত্রে নত হয়ে আছে

আজকাল এক পাগল আমাকে অনুসরণ করে
আজকাল স্বপ্নাকাকিমার মুখ ভেসে ওঠে লবনহ্রদের
মজে যাওয়া সামাজিক জনপদে
সুদীপ্ত কি এখনো ডাক্তারে চেম্বারে অনির্ণেয় অনাগতের জন্য অপেক্ষায় ঘুমিয়ে আছে

আমার ফুটো গৃহকোণ থেকে এক স্বপ্নাদ্য তাবিজ
হেসে ওঠে
বৃষ্টি নামার প্রাককালে বাস্তুময়ূর নাম ধরে ডাকে
আমার বিবাহ বাসরে যে পাগল গান গেয়েছিল
তার নাম ভুলে যাবো এটা তো নেক্স টু পসিবাল

সেই মন্ডলবাড়িতে আজ আমার অন্নপ্রাশন
সবাই গান গাইতে এসো কিন্তু

56