দেশ জুড়ে বিক্ষোভের মাঝে মধ্যরাত থেকেই জরুরি অবস্থা শ্রীলঙ্কায়, ঘোষণা রাজাপক্ষের

 ১লা এপ্রিলের পর আবারও শ্রীলঙ্কায় দ্বিতীয় বার জরুরী অবস্থা কার্যকর করা হবে। মধ্যরাত থেকে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করলেন শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপক্ষে। অর্থনৈতিক সঙ্কটের প্রতিবাদে দেশ জুড়ে ধর্মঘটের দিনেই এই সিদ্ধান্ত নিল শ্রীলঙ্কা সরকার।

১৯৪৮ সালে শ্রীলঙ্কার স্বাধীনতার পর থেকে দেশের অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে এতটা দুর্দশার পরিস্থিতি কখনও দেখা যায়নি। চরম আর্থিক সঙ্কটে ধুঁকতে থাকায় ইতিমধ্যেই ‘অর্থনৈতিক ভাবে দেউলিয়া’ বলে ঘোষণা করেছে গোতাবায়া সরকার।

রাজাপক্ষের পদত্যাগের দাবিতে মাসখানেক ধরেই তাঁর কার্যালয়ের বাইরে শিবির গড়ে অবস্থান বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন বহু সাধারণ মানুষ। তবে এই বিক্ষোভের মাঝে অন়ড় রয়েছেন প্রেসিডেন্ট রাজাপক্ষে। নিজের পদ থেকে ইস্তফায় নারাজ তিনি।

আন্তর্জাতিক ঋণ এবং সুদ মেটাতে চলতি বছরের মধ্যে অন্তত ৬৯০ কোটি ডলার (প্রায় ৫২,৪০০ কোটি টাকা) ব্যয় করার কথা শ্রীলঙ্কার। নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যদ্রব্য থেকে শুরু করে জ্বালানী, কৃষিক্ষেত্রে সারের মতো একাধিক পণ্যের দাম ধরাছোঁয়ার বাইরে। মাসের পর মাস দেশে এই অবস্থার বিরুদ্ধে শুক্রবার সকাল থেকেই দেশ জুড়ে নতুন করে সরকার বিরোধী প্রদর্শন করে শ্রীলঙ্কার আমজনতা।

47