ডিওয়াইএফ আই’র ১১ তম সর্বভারতীয় সম্মেলনের বার্তা পৌঁছে দিতে রায়গঞ্জে আলোচনা সভা।

ওয়েবডেস্কঃ

ডিওয়াইএফ আই’র ১১ তম সর্বভারতীয় সম্মেলনের বার্তা ছাত্র, যুব,মহিলা থেকে শুরু করে বিভিন্ন ক্ষেত্রের মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে রায়গঞ্জে আলোচনা সভা।
এই রাজ্যের পরিচিতি সত্তা যুব জীবনের যন্ত্রনা বিষয়ক আলোচনা করেন আভাস রায়চৌধুরী।
উত্তর দিনাজপুর জেলার ডিওয়াইএফ আই কর্মীরা ছাড়াও আলোচনা সভায় সাধারণ মানুষের ভীড় উপচে পরেছে রায়গঞ্জ বিধান মঞ্চে।


এই মুহুর্তে যুব জীবনের প্রত্যাশা শিক্ষার শেষে একটা কাজ। এই যন্ত্রনা গ্রাম শহরে একই চিত্র।
তবে, সময় বদলেছে। মানুষের ভাবনা চিন্তার জগতেও আমুল পরিবর্তন ঘটেছে ।বর্তমান ডিজিটাল ব‍্যবস্থা ছাত্র যুব থেকে বিভিন্ন বয়সী মানুষের মধ্যে প্রভাব ফেলেছে। সমসাময়িক চাহিদার সঙ্গে সাযুজ্য রেখে প্রচারেও অভিনবত্ব দেখা যাচ্ছে ডিওয়াইএফ আই’র সম্মেলনে।
কাজ নেই, কৃষকের ফসলের দাম নেই। অসহায় মানুষ হতাশায় ভুগছেন। আবার এই সময়েও আবার যারা কাজ পেয়েছে তারাও ভালো যে নেই। মন্ত্রী সান্ত্রীদের নিয়ে কানাকানি, টানাটানি, মামলা, আদালত প্যানেল হয়ে থাকা দেরও লড়াই করতে হচ্ছে। টাকা দিয়েও চাকরি হচ্ছেনা।

কেন্দ্র সরকার রাজ্য সরকার
রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থার রাখবে না।
রাজ্যে ৬ লক্ষ শুন্যপদ। স্কুল বন্ধ হয়ে যাচ্ছে এর প্রত্যক্ষ ফলাফল বাড়ছে যুব যন্ত্রনা।
কারখানা থেকে স্কুল কাজ নেই কাজ থাকলেও মজুরি নেই। এ রকম অনেক যন্ত্রনা। মানুষ থেকে মানুষকে বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হচ্ছে। আর এস এস নাগপুর থেকে তৈরী করে দেওয়া প্রজেক্ট। নাগপুরের সেই ভাবে নির্দেশ মেনে চলছে এই রাজ্যের সরকার।

যন্ত্রনা কে ভুলিয়ে রেখে সোনালি স্বপ্নের ঘোরে বিনোদনে মাতিয়ে রাখা হচ্ছে। এর বিরুদ্ধে লড়াইকে আরও শানিত করতে হবে। বৃহস্পতিবার রায়গঞ্জ বিধানমঞ্চে আলোচনা সভায় মুল বক্তা ডি ওয়াই এফ আই প্রাক্তন সম্পাদক তথা সি পি আই (এম) কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আভাষ রায়চৌধুরী। উপস্থিত ছিলেন ডি ওয়াই এফ আই দক্ষিন দিনাজপুর জেলার সভাপতি সমীরণ সাহা, রাজ্য নেত্রী ঐশানী বাকচী, সামী খান, প্রাক্তন জেলা সম্পাদক মনোরঞ্জন দাস, ভারতেন্দ্র চৌধুরী, অপুর্ব পাল, সুরজিত কর্মকার, কার্তিক দাদ প্রমুখ। সভায় সভাপতিত্ব করেন রাজ্য নেতা গৌতম বর্মন।


69