কুলিক ব্রেকিং : বেতন বন্ধের নির্দেশ ৩৫০ স্কুল করণিকের : রয়েছে জেলার ৬ জন

ওয়েব ডেস্ক : বিতর্ক যেন পিছু ছাড়ছে না স্কুল সার্ভিস কমিশনের। কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে আগেই বন্ধ করা হয়েছে ৫৬৭ জন গ্রুপ ডি স্কুল কর্মীর। এদের মধ্যে প্রথমে ২৫ জনের বেতন বন্ধের নির্দেশ আসে। পরবর্তীতে হাইকোর্টের রায়ে বেতন বন্ধ করা হয় আরো ৫৪২ জনের। এবার দুর্নীতির অভিযোগে এস এস সি গ্রুপ সি কর্মী নিয়োগ। স্কুল করণিক নিয়োগে দুর্নীতির জালে এবার জড়িয়ে গেল জেলা উত্তর দিনাজপুর। রাজ্যের যে মোট ৩৫০ জন স্কুল করণিকের বেতন বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট তার মধ্যে রয়েছে জেলার ৬ জন।

আজ উত্তর দিনাজপুর জেলা বিদ্যালয় পরিদর্শককে (মাধ্যমিক) পাঠানো একটি চিঠিতে ওয়েস্ট বেঙ্গল সেন্ট্রাল স্কুল সার্ভিস কমিশনের সেক্রেটারি জানান যে কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশ মোতাবেক ১৮ ই মে ২০১৯ এ গ্রুপ সি কর্মীদের প্যানেলের মেয়াদ উত্তীর্ণ হবার পর গ্রুপ সি পদে যেসব নিয়োগ হয়েছে সেসব ক্ষেত্রে রেকমেন্ডেশন দেয়া হয়েছে কি না তা খতিয়ে দেখতে এবং  প্যানেল মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়ার পরে নিযুক্ত গ্রুপ সি কর্মীদের বেতন বন্ধ রাখতে। এই নির্দেশের ভিত্তিতেই বন্ধ হতে চলেছে জেলার ৬  স্কুল করণিকের বেতন।

জানা গিয়েছে এদের মধ্যে রয়েছেন আলতাপুর হাই স্কুলের ২ জন, রামপুর ইন্দিরা বিদ্যালয়ের ১ জন,  দুধুণ্ডা অলক তীর্থ হাইস্কুলের ১ জন,  পাড়াহরিপুর হাই স্কুলের ১ জন ও পাতৈর হাই স্কুলের ১ জন।

ভুয়ো নিয়োগের অভিযোগে আজ ৩৫০ জনের বেতন বন্ধ করে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। 

নিয়ম বহির্ভূত ভাবে ৩৫০ জন চাকরি পেয়েছেন, এমন অভিযোগ জানিয়ে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন মামলাকারীরা। আগেই এই মামলায় এক জনের বেতন বন্ধ করে দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। এবার বাকিদেরও বেতন বন্ধ করার কথা বলল আদালত। মামলাকারীদের দাবি ছিল প্যানেল বহির্ভূত ভাবে চাকরি পেয়েছেন অন্তত ৩৫০ জন। এদের মধ্যে যাঁরা চাকরিতে যোগ দিয়েছেন তাঁদের সবার বেতন বন্ধ করতে কমিশনকে নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়।

504