প্লাস্টিকের বোতল দিয়ে কালীমূর্তি গড়ল রায়গঞ্জের যুবক

ওয়েবডেস্ক : ফেলে দেওয়া প্লাস্টিকের জলের বোতল ব্যবহার করে কালী মূর্তি গড়ল রায়গঞ্জের যুবক দীপ। ব্যবহার করার পর ফেলে দেওয়া প্লাস্টিকের জলের বোতলগুলোকে ব্যবহার করে কালী মূর্তি গড়ল রায়গঞ্জের যুবক দীপ কুন্ডু। রায়গঞ্জ শহরের তুলসীতলা এলাকার ওই যুবকের এই কর্মকাণ্ডে প্রশংসা করেছেন পরিবেশ চিন্তকেরা।

রায়গঞ্জ কুমারডাঙ্গিতে জন্ম বর্তমানে তুলসীপাড়ায় বসবাসকারী কুন্ডু পরিবারের এই যুবকের। বাবা চন্দন কুন্ডু এবং মা রত্না কুন্ডুর দুই মেয়ে ও এক ছেলে। একমাত্র ছেলের এই কাজে ভীষণ খুশি পরিবারের সদস্যরা। এদিন দীপ বলে, উচ্চ মাধ্যমিক পড়ছি। কিন্তু সমাজের সাধারণ মানুষের জন্য কিছু করার একটা ইচ্ছে ছোট থেকেই রয়েছে। তাঁর কথায়, ‘সবসময়ই চেষ্টা করি নতুন কিছু করতে, যাতে সমাজকে সচেতন করা যায়। তাই নতুন নতুন জিনিস গড়ে তোলার কথা ভাবি।’ হঠাৎ এমন উদ্যোগের বিষয়ে তার দাবি, হঠাৎ করে এই উদ্যোগ নয়। সে বলে, ‘আমি সব সময় সমাজকে যাতে একটা ভালো ভাবনা দিতে পারি, যাতে সমাজ খুবই খুবই সুন্দর হয়ে উঠে এবং পরিবেশ খুব সুন্দর হয়ে উঠে, সেই ধরনের কাজ করি। ফেলে দেওয়া জিনিস গুলো কে সুন্দর ভাবে গুছিয়ে আমি গাছ লাগাই, যে বোতলগুলো নষ্ট হয়, সেগুলো দিয়ে গাছ লাগানোর টব বানাই।’ এই কাজে পরিবারের পূর্ণ সহযোগিতা পেয়েছে দীপ। সে বলে, ‘পরিবার বাদে আর কারো কাছে তেমন কোনো সহযোগিতা পাইনি। নিজে যতটুকু পেরেছি, করেছি।’

কালী পুজোর আগে নতুন কি করা যায়, সেটা নিয়ে ভাবনা চলছিল। সে বলে, ‘সামনে কালীপুজো, সেইমতে আমরা কালী মূর্তি গড়েছি। পরবর্তীতে আমার ইচ্ছা রয়েছে আমি যাতে আরো অনেক কিছু বানাতে পারি। যার মধ্যে দিয়ে আমার বসবাসকারী সমাজ এবং পরিবেশকে খুব সুন্দর করে তুলতে একটা বার্তা দিতে পারি।’ পথে ঘাটে বহু মানুষ প্লাস্টিকের বোতল ব্যবহার করেন। ব্যবহারের পর সেটা ফেলে দেন।বর্ষায় সেই ফেলে দেওয়া প্লাস্টিকের বোতলে জল জমে ডেঙ্গু মশার প্রকোপ বাড়তে পারে। এছাড়াও ড্রেন বন্ধ হয়ে যায় ওই আবর্জনায়। তাই ঘর সাজানোর পাশাপাশি দেবতার মূর্তি গড়লে পরিবেশের অবক্ষয় কিছুটা কমবে বলে সে জানায়। দীপের এই কাজের প্রশংসা করেছেন পরিবেশ চিন্তকেরা। তাদের দাবি, প্লাস্টিক আমাদের জীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশে পরিণত হয়েছে। তাই এভাবেই দূষণ নিয়ন্ত্রণ করাই সঠিক পথ। যদিও শাস্ত্র অনুসারে প্লাস্টিকের তৈরি প্রতিমা পুজো করা যায় না বলে দাবি বিশেষজ্ঞদের৷ শাস্ত্র জ্ঞানী বিষ্ণু দেব ভট্টাচার্য বলেন, এভাবে প্লাস্টিকের তৈরি প্রতিমা পূজিত হবে না। এটা ঘর সাজানোর পুতুল হিসেবে বিবেচিত হবে। হিন্দু পুরাণের মূর্তিতত্ত্ব অনুযায়ী মূর্তি তিন রকম হতে পারে। একটি মাটি ও খড়ের মূর্তি , অপরটি পাথরের মূর্তি এবং কাঠের মূর্তি। এগুলো ছাড়া অন্য পদার্থ ব্যবহারে তৈরি মূর্তির পূজা হয় না এবং ও শাস্ত্রীয় নয়।

280