Categories
দেশ

শিক্ষক নিয়োগ সংক্রান্ত নিয়ম বদল করল কেন্দ্র , জারি করা হল বিশেষ বিজ্ঞপ্তি

ওয়েবডেস্কঃ শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ায় বড়োসড়ো বদল করল কেন্দ্র। বাড়ানো হল যোগ্যতারমান। আগে স্নাতক পাশ ও ডিএলএড কোর্স করলেই প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ানোর যোগ্যতা পেতেন শিক্ষকরা। কিন্তু , ন্যাশনাল কাউন্সিল ফর টিচার্স এডুকেশন -এর তরফে প্রকাশ করা হয়েছে নতুন গেজেট নোটিফিকেশন।

এই সংশোধনী বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে , ” স্নাতকে ৫০% নম্বর–সহ বিএড ডিগ্রি হলে তবেই প্রাইমারি টেট পরীক্ষায় বসতে পারবেন আবেদনকারীরা। এছাড়া ৩ বছরের ইন্ট্রিগ্রেটেড বি.এড-এম.এড প্রশিক্ষণ থাকলেও প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ায় আবেদন করা যাবে। তবে , শিক্ষক হিসেবে যোগদানকারীদেরকে বাধ্যতামূলক প্রাথমিক শিক্ষার উপর ছ’মাসের একটি ব্রিজ কোর্স করতে হবে। শিক্ষক হিসেবে স্কুলে যোগ দেওয়ার দু’বছরের মধ্যে এই কোর্স সম্পন্ন করতে হবে।”

এখানে আরো বলা হয়েছে, কমপক্ষে ৫০% নম্বর-সহ স্নাতক এবং ১ বছরের স্পেশ্যাল বিএড এবং স্নাতকোত্তর ন্যূনতম ৫৫% নম্বর বা সমমানের গ্রেড এবং তিন বছরের ইনট্রিগেটেড বিএড-এমএড করলেই কেউ প্রাইমারি টেট বসার যোগ্যতামান অর্জন করবেন।

নতুন বিজ্ঞপ্তি নিয়ে বিভিন্ন মহল থেকেও পাওয়া গেছে ইতিবাচক সাড়া। কলেজিয়াম অফ অ্যাসিস্ট্যাণ্ট হেডমাস্টার্স অ্যান্ড অ্যাসিস্ট্যাণ্ট হেডমিস্ট্রেসেস-এর সম্পাদক সৌদীপ্ত দাস বলেন “এই বিজ্ঞপ্তিকে স্বাগত। এর ফলে আরও বেশি সংখ্যক প্রার্থীর ক্ষেত্রে শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষায় বসবার সুযোগ মিলবে।”

অল পোস্ট গ্র্যাজুয়েট টিচার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক চন্দন গরাই বলছেন, “সিদ্ধান্ত স্বাগত। চাকরিপ্রার্থীর সংখ্যা বাড়বে। তিন বছরের ইন্টিগ্রেটেড বিএড এম এড কোর্সের জন্য সারা দেশে পরিকাঠামা বৃদ্ধি করতে করতে হবে।”

অন্যদিকে, চাকরিপ্রার্থী সংগঠনের নেতৃত্ব সুশান্ত ঘোষ নিজের মত প্রকাশ করে বলেছেন ,“এনসিটিই–র নিয়ম সংশোধনে বেশ কিছু সংশয় রয়েছে। সেই তিন বছরের ইন্টিগ্রেটেড বিএড, এমএড কোর্স এখনও সব রাজ্যে এবং এ রাজ্যেও চালু হয়নি। এ শুধু নিয়ম পরিবর্তন করার খেলা। নিয়ম মেনে প্রতি বছর টেট পরীক্ষা ও নিয়োগ হলে প্রার্থীরা বেশি উপকৃত হবেন।”

43

Leave a Reply