Categories
দেশের খবর

নৃশংস নরসংহার উত্তর প্রদেশে। বিক্ষোভকারী কৃষকদের উপর দিয়ে গাড়ি চালিয়ে দিল মন্ত্রী পুত্র। সংঘর্ষে মৃত ৮ জন।


ওয়েবডেস্ক: কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর তার নিজের নির্বাচন কেন্দ্রে একটি অনুষ্ঠানে কৃষক আন্দোলনের বিরুদ্ধে তার মন্তব্যের জন্য কৃষকরা যখন তার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখাচ্ছিল সেই সময় আন্দোলকারী কৃষকদের উপর গাড়ি চালিয়ে দিল কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী অজয় মিশ্রের ছেলে আশিস মিশ্র। উত্তরপ্রদেশের লখিমপুরের খেরির এলাকায় এই ভয়ঙ্কর ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার। ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৪ জন কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন আরো ৪ জন কৃষক। অন্যদিকে উত্তপ্ত জনতা পিটিয়ে মেরেছে মন্ত্রীর অনুচর – ড্রাইভার সহ চারজনকে পিটিয়ে মেরেছে বলে অভিযোগ।

পপুলি সূত্রে খবর এদিন খেরির টিকুনিয়া গ্রামে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অজয় মিশ্রের একটি অনুষ্ঠান ছিল। ওই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উত্তরপ্রদেশের উপমুখ্যমন্ত্রী কেশব প্রসাদ মৌর্য। ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী অজয় মিশ্রর ছেলে আশিস মিশ্র। তিনি উপমুখ্যমন্ত্রীকে আনতে যাচ্ছিলেন। সেই সময় কৃষকরা কেন্দ্রের আনা তিনটি কৃষি বিলের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করছিলেন। কৃষকদের বিক্ষোভ সমাবেশে ভন্ডুল করতে কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী অজয় মিশ্রের ছেলে আশিস মিশ্র কৃষকদের মিছিলের মধ্যে গাড়ি চালিয় তিনজন কৃষককে পিষে মারে বলে অভিযোগ। পরে হাসপাতালে মৃত্যু হয় আরও এক কৃষক। অভিযোগ আন্দোলকারী কৃষকদের ধাক্কা মেরে তাদের ওপর দিয়ে গাড়ি চালিয়ে দেয় আশিস। সেই সময় আন্দোলনকারী কৃষকদের লক্ষ্য করে গুলি চালায় একদল অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তি।
যদিও এখনও বিষয়টি নিয়ে মুখ খোলেনি উত্তর প্রদেশ প্রশান। মোদী সরকারের প্রতিমন্ত্রীর ছেলে হওয়ায় এখানো কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি। এই ঘটনার প্রতিবাদে এখনো আন্দোলন চালাচ্ছেন কৃষকেরা। স্থানীয়রা জানিয়েছেন এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত আট জন কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছে প্রায় ১২ জন।

কৃষকদের হত্যার ঘটনায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের রাষ্ট্রমন্ত্রী অজয় মিশ্রকে মন্ত্রীসভা থেকে বরখাস্তের দাবি জানিয়েছে সংযুক্ত কিষাণ মোর্চা। এই ঘটনার পরে জরুরী বৈঠকে বসেছিলেন সংযুক্ত কিষাণ মোর্চার নেতারা। বৈঠকের পরে তাঁরা বলেন, বর্বরোচিত আক্রমণ চালানো হয়েছে। সোমবার দেশব্যাপী সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১ টা পর্যন্ত জেলাশাসক, মহকুমা শাসকের দপ্তরের সামনে অবস্থান করবেন কৃষকরা। এই ঘটনার পরে দেশজুড়ে কৃষকরা ক্রোধে ফুঁসছেন। কিন্তু কৃষক নেতারা আবেদন জানিয়েছেন, শান্তিপূর্ণ পথেই, কোনো প্ররোচনায় পা না দিয়েই আন্দোলন চালিয়ে যেতে

এদিকে এই ঘটনায় দেশজুড়ে নিন্দার ঝড় উঠেছে। কংগ্রেস নেতা রাহুল গাঁধী, প্রিয়াঙ্কা গান্ধী, সমাজবাদী পার্টির নেতা অখিলেশ যাদব, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সহ বিভিন্ন নেতারা তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন।

প্রিয়াঙ্কা গান্ধী রাতেই মৃত কৃষক পরিবার গুলির সাথে দেখা করতে ঘটনাস্থলে রওনা হন কিন্তু যোগীর পুলিশ তাকে রাস্তাতেই আটক করে পুলিশ হেফাজতে রেখেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। রাকেশ টিকায়েত সহ বিভিন্ন কৃষক নেতারাও ঘটনা স্থলের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন।

রাহুল গাঁধী এক ট্যুইটে বলেছেন এই অমাবীয় নরসংহারে দেখেও যারা চুপ করে আছে আসলে তাদের আগেই মৃত্যু ঘটেছে।

সিপিএম সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি ট্যুইট করে বলেছেন ব্রিটিশ শাসকদের থেকেও নৃশংস বিজেপি শাসকরা।

40

Leave a Reply