Categories
খেলা

মুখ্যমন্ত্রীর কাছে তিনবার দরবার করেও মেলেনি চাকরি, দিনমজুরী করে পেট চলছে বিশ্বজয়ী ক্রিকেটারের।

ওয়েবডেস্কঃ পেট চালাতে দিন মজুরের কাজ করতে হচ্ছে বিশ্বকাপ জয়ী ভারতীয় দলের সদস্য নরেশ তুমডা কে। ২০১৮ ব্লাইন্ড ক্রিকেট বিশ্বকাপে ভারতের চির-প্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তান কে দুবাইয়ে ফাইনালে পরাজিত করে বিশ্বকাপ জিতেছিল যে ভারতীয় দল তার অন্যতম সদস্য ছিলেন গুজরাটের নরেশ তুমডা। মাত্র তিন বছরের মধ্যে তাকে আজ পেটের দায়ে দিনমজুরের কাজ করতে হচ্ছে। একটি চাকরির জন্য গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রীর কাছে তিনবার দরবার করেও কোনো কাজের সুরাহা হয়নি এই বিশ্বচ্যামপিয়ন ক্রিকেটারের।

সংবাদসংস্থা এএনআইয়ের পক্ষ থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, করোনা আবহে দীর্ঘদিন ধরে আর্থিক সংকটে ভুগছেন গুজরাটের নবসারির বাসিন্দা নরেশ তুমডা। করোনার সময়ে আর্থিক অনটনের মধ্যে থাকায় বাজারে সবজি বিক্রি করেছেন। আর এখন দিনমজুর হিসেবে কাজ করছেন। অথচ গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রীর কাছে তিনবার আবেদন জানিয়েও কোনও সুরাহাই হয়নি। এই প্রসঙ্গে নরেশ জানিয়েছেন, “দিনমজুরের কাজ করে দৈনিক ২৫০ টাকা রোজগার করি। মুখ্যমন্ত্রীর কাছে তিনবার চাকরির জন্য আবেদন করেছিলাম। কিন্তু কোনও সুরাহা হয়নি। সরকারের কাছে একটাই আবেদন, আমাকে একটি চাকরি দেওয়া হোক, যাতে আমি পরিবারের খেয়াল রাখতে পারি।”

২৯ বছরের তুমডা গত বছরে লকডাউনের সময় সবজি বিক্রি করেছিলেন৷ কিন্তু এতে পরিবার প্রতিপালন করা সম্ভব হচ্ছিল না, তাই তাঁকে মজুরের কাজ করতে হচ্ছে৷ সেকথাও জানান তিনি। বলেন, “আমার মা -বাবা বৃদ্ধ, আমার বাবা কাজ করতে পারেন না৷পরিবারের একমাত্র সম্বল আমি৷ গত বছর জামালপুর বাজারে আমি সবজি বিক্রি করতাম৷ কিন্তু তাতে বেশি রোজগার হয় না৷ তাই এই দিনমজুরের কাজ বেছে নেওয়া।” ২০১৮ সালে ঐতিহাসিক ওই জয়ের পর ইতিহাস তৈরি করেছিল ভারতীয় দল৷ গোটা দেশ সমস্ত ক্রিকেটারদের প্রশংসা করেছিল৷ রাষ্ট্রপতি থেকে প্রধানমন্ত্রী সকলেই ক্রিকেটাদের প্রশংসা করেছিলেন৷ ক্রিকেটারদের সঙ্গে দেখাও করেছিলেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ, কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরা। মিলেছিল আশ্বাসও। কিন্তু সেগুলি যে কেবল মুখের কথা, নরেশের কাহিনিই তার প্রমাণ।

53

Leave a Reply