Categories
দেশের খবর

সংক্রমণ শঙ্কায় পুজোতেও ঘরবন্দি বাঙালি? কী বলছে স্বাস্থ্য মন্ত্রকের চিঠি

ওয়েবডেস্কঃ মাস দেড়েক বাদেই দেশজুড়ে উৎসবের মরশুম। গণপতি-সহ শারদোৎসব এবং দীপাবলিতে মাতবে আসমুদ্র হিমাচল। কিন্তু এই সময় করোনা বিধি শিথিল হোক, চায় না কেন্দ্র। তাই উৎসবের মরশুমে করোনাবিধি কার্যকর রাখতে প্রতিটি রাজ্যকে চিঠি দিল কেন্দ্র। এই মর্মে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য সচিব রাজেশ ভূষণ চিঠিতে জানান, স্থানীয় উৎসবেও করোনার বিধিনিষেধ জারি রাখতে হবে রাজ্যগুলিকে। তবে, শুধু দুর্গাপুজো নয়, মহরম, ওনাম, গণেশ চতুর্থী, জন্মাষ্টমী ও দুর্গাপুজো যে রাজ্যগুলিতে প্রচলিত। সেখানে করোনার বিধিনিষেধ মেনে চলতেই হবে। না হলে করোনা সংক্রমণ আরও বাড়ার আশঙ্কা।

কেন্দ্রের একটি রিপোর্ট বলছে, এখনও দেশ থেকে নির্মূল হয়নি দ্বিতীয় ঢেউয়ের ভ্রূকুটি। এই আবহেই ঘাড়ের কাছে নিঃশ্বাস ফেলছে তৃতীয় ঢেউ। এমন উদ্বেগের কথা উল্লেখ করে আইসিএমআর সর্তকবার্তা-সহ রাজ্যের মুখ্য সচিবকে এই চিঠি দিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যসচিব।

কেন্দ্রের দেওয়া চিঠিতে বলা হয়েছে উৎসবের মরসুম আসছে, তাই সতর্ক থাকতে হবে। স্থানীয় প্রশাসনকে ভিড় এড়াতে উপযুক্ত পদক্ষেপ নেওয়ার ব্যবস্থা করতে হবে। আগামী ৫ থেকে ১৫ অক্টোবর দুর্গোৎসবকে কেন্দ্র করে সংক্রমণের বিষয়টি মাথায় রেখে স্থানীয় জেলা এবং রাজ্য প্রশাসন যেন উপযুক্ত ব্যবস্থা নেয়। নবান্নকে এমন আবেদন করেছে কেন্দ্র। পাশাপাশি গণেশ চতুর্থী, জন্মাষ্টমীতেও বিধিনিষেধ বহাল-সহ একাধিক সাবধানতা নিতে সংশ্লিষ্ট রাজ্যগুলিকে চিঠি পাঠিয়েছে কেন্দ্র। চিঠিতে স্বাস্থ্যসচিব লেখেন, ‘আইসিএমআর ও এনসিডিসি-র তরফে জানানো হয়েছে উৎসবের মরশুমে জমায়েত হলে তা নতুন করে সুপার স্প্রেডারে পরিণত হতে পারে।‘

ক্যালেন্ডার মেনে, চলতি বছর ১৯ অগাস্ট মহরম। দুর্গাপুজো শুরু ১১ অক্টোবর । কিন্তু শারদোৎসব যেহেতু বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসব, তাই মহালয়ার দিন থেকেই আমেজ নিতে ব্যস্ত থাকবে বাঙালি। এটাই ভাবাচ্ছে স্বাস্থ মন্ত্রককে। এদিকে, চলতি মাস থেকেই শুরু হতে চলেছে উৎসবের মরশুম। ইতিমধ্যে বিশেষজ্ঞদের একাংশের ধারণা, অগাস্টেই আছড়ে পড়তে পারে করোনার তৃতীয় ঢেউ। আর পুজোর সময় তা শীর্ষে পৌঁছবে। এই আবহে উৎসবের মরশুমে দরকার বাড়তি সর্তকতা। বুধবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য সচিব রাজেশ ভূষণ প্রতিটি রাজ্যকে এই পরামর্শ দিয়েই চিঠি পাঠিয়েছেন।

53

Leave a Reply