Categories
অন্য খবর

শখ পূরণ করে বেকায়দায় শিক্ষক। সংবাদ প্রচার হতেই পাশে দাঁড়ালেন নেটিজেনরা।

ওয়েবডেস্কঃ

শিক্ষক বলে কথা। হাতে চক-ডাস্টার ছাড়া কিছু থাকার কথা নয় মনে করে এই সমাজ। কিন্তু তাই বলে কি শখ?? তাও আবার বন্দুক হাতে! আর এমন শখ পূরণ করে বেকায়দায় বর্ধমান মিউনিসিপ্যাল হাই স্কুলের প্রাথমিক বিভাগের প্রধান শিক্ষক বিশ্বজিৎ পাল। ভোটের ডিউটিতে গিয়ে শখ করে ইনসাস রাইফেল হাতে নিয়ে হাসিমুখে ক্যামেরার সামনে পোজ দিয়েছিলেন। শখের সেই ছবি স্কুলের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপেও শখ করে দিয়েছিলেন। আর সেখান থেকেই সমস্যার সূত্রপাত। সেই ছবি ভাইরাল হয়ে যায় স্কুল গ্রুপ থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

শখ যে এত বড়ো বিপদে ফেলবে ঐ শিক্ষককে তা হয়তো স্বপ্নেও কল্পনা করেননি তিনি। স্কুলের প্রাক্তনী থেকে শিক্ষক মহল নিন্দায় সরব হয় এই ছবি দেখে।একজন প্রধান শিক্ষকের এই ধরনের ছবি শোভা পায় না বলেই জানাচ্ছেন তাঁরা।

শিক্ষকের হাতে কীভাবে এল এই বন্দুক? সেই প্রশ্নও উঠছে। বন্দুক হাতে আবার স্কুল প্রাঙ্গনে দাঁড়িয়েই পোজ দিয়েছেন বিশ্বজিৎ পাল। অনেকে মনে করছেন, ভোটের সময় স্কুলের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা কেন্দ্রীয় বাহিনীর কোনও জওয়ানের থেকে হয়তো নিয়ে ছবি তুলেছেন তিনি। ইতিমধ্যেই বিষয়টি পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রাথমিক শিক্ষা সংসদ ও পুলিশের নজরে এসেছে। তারাও বিষয়টি খতিয়ে দেখছে।

সংবাদ মাধ্যমে খবর হল দাবাং মেজাজে ইনসাস রাইফেল হাতে শিক্ষক। আর এই খবর সামনে আসতেই সংবাদ মাধ্যম ও নিন্দুকদের ট্রোল করতে শুরু করে নেটিজেনরা। একের পর এক কমেন্টে সংবাদ মাধ্যমকে বাঁকা কমেন্ট করা হচ্ছে খবরের ক্যাপশনের জন্য।সাথে সাথেই শিক্ষকের সমর্থনে জোড়ালো কমেন্ট করছে নেটিজেনরা।

যদিও এই ঘটনার প্রসঙ্গে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের সভাপতি অচিন্ত্য চক্রবর্তী সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, তিনি ছবিটি কয়েকদিন আগেই পেয়েছেন। বিভাগীয় তদন্তের পাশাপাশি তাঁরাও পুলিশকে জানাবেন তদন্ত করার জন্য। পুলিশ সুপার কামনাশিস সেন জানিয়েছেন, পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

123

Leave a Reply