Categories
প্রথম পাতা

মা-বাবার পাশ থেকে শিশুকন্যাকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ!

ওয়েবডেস্কঃ রাজ্যে আবারো বিকৃত লালসার শিকার এক খুদে। সাড়ে ছ বছরের শিশুকন্যা ধর্ষণের বলি। বাবা-মায়ের পাশ থেকে সাড়ে ছ’বছরের শিশুকন্যাকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ উঠল প্রতিবেশী এক যুবকেরই বিরুদ্ধে।

নারকীয়, জঘন্য এই ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিমবঙ্গের পূর্ব বর্ধমান জেলার ভাতার থানার খেড়ুর গ্রামে। ৮ থেকে ৮০ নয়, মেয়ে সন্তান জন্মকাল থেকে মৃত্যু অবধি এমনকি মৃত্যুর পরও সুরক্ষিত নয়। উত্তেজিত জনতা ওই অভিযুক্তকে তুলে দিয়েছে পুলিশের হাতে।যা জানা যাচ্ছে, নির্যাতিতা শিশুটির অবস্থা আশঙ্কাজনক। ভাতার স্টেট জেনারেল হাসপাতালে চিকিত্‍সার পর বাচ্চাটিকে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

অভিযুক্তের বয়স ২২ বছর। ধর্ষকের নাম তীর্থ বাগ ওরফে লাদেন। পশ্চিমবঙ্গ, অসম, উত্তরপ্রদেশ, ত্রিপুরায় এই জঘন্য ঘটনাগুলো একের পর এক ঘটছে। সমাজে বাড়ছে কাপুরুষের উৎপাত। বাচ্চা মেয়েটির মা-বাবা দুজনই দিনমজুর। কোনরকমে দিন গুজরান হয়। করোনাকালে অবস্থা তো আরো খারাপ।

ঘটনার বিবরণে জানা গিয়েছে, রবিবার রাতে খাওয়ার পর দুই মেয়েকে নিয়ে ঘুমোচ্ছিলেন আদিবাসী দম্পতি। প্রচণ্ড গরমও দিয়েছে তাই ঘরের দরজা খুলেই রেখেছিলেন। কিন্তু তাঁরা কি আর জানতেন তাঁদের মেয়ের দিকেই ওঁত পেতে আছে এক হায়না। যে কিনা তাঁদেরই প্রতিবেশী। আচমকা রাতে উঠে দেখেন বিছানা শূন্য। বড় মেয়েটি নেই। শুরু হয় খোঁজাখুঁজি, চিৎকার। এত রাতে হঠাৎ ঐটুকু বাচ্চা গেল কোথায়?

যা জানা গেল, রাত প্রায় একটা নাগাদ সারাটা শরীরে কাদা মাখা অবস্থায় আর প্রচণ্ড অসুস্থ হয়ে বাচ্চা শিশুটি নিজেই বাড়ি ফিরে আসে। তার সঙ্গে কী ঘটেছে পুরো ঘটনা খুলে বলে। সাড়ে ছ বছরের মেয়েটিকে পাশবিক নির্যাতন চালিয়েছে ২২ বছরের যুবক লাদেন। এর পর খোঁজ শুরু হয়। অবশেষে সোমবার ভোরে তাকে ধরেন স্থানীয়রা। সকালে পুলিশ আটক করে অভিযুক্তকে। মেয়েটির অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাকে হাসপাতালে পাঠানো হয় চিকিত্‍সার জন্য।

নারকীয় এই ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে এলাকায়।

142

Leave a Reply