Categories
crime

করোনার জীবনদায়ী ইঞ্জেকশন চুরি কান্ডে গঠিত তদন্ত কমিটি

 ওয়েবডেস্ক জুন৩,২০২১: গতকাল করোনার জীবনদায়ী ঔষধ ইঞ্জেকশন চুরির ঘটনা কানে আসছে মুখ্যমন্ত্রী মন্তব্য করেছিলেন যে ব্যাপারটি নিয়ে রাজনৈতিক মন্তব্য তিনি করবেন না তবে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আজ ইঞ্জেকশন চুরি কাণ্ডে গঠিত হল তদন্ত কমিটি। সূত্রের খবর মেডিক্যাল কলেজের এই তদন্ত কমিটিতে ৭ জন সদস্য রয়েছেন। রয়েছেন ফার্মাকোলজি ফরেনসিক-সহ নানা বিভাগের চিকিৎসকরা এবং নার্সিং বিভাগের অধিকারিকরা।

২৬টি টোসিলিজুম্যাব ইঞ্জেকশন চুরি নিয়ে গতকাল হইচই শুরু হয় মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। আইএনটিটিইউসি সেবা দলের পক্ষ থেকে বুধবারই  এই ঘটনা নিয়ে বউবাজার থানায় অভিযোগ দাখিল করা হয়েছে। অভিযোগকারীদের বক্তব্য এই ২৬ টি জীবনদায়ী ইঞ্জেকশান পরিকল্পনামাফিক ভাবে, শিশু বিভাগের দায়িত্বে থাকা সিস্টারকে বোকা বানিয়ে গায়েব করা হয়েছে। তারা চাইছেন এই দুর্নীতির যথোপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হোক।

এই বিষয় নিয়ে নড়েচড়ে বসেছে মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষ। অধ্যক্ষ মঞ্জু বন্দ্যোপাধ্যায়ের কথায়, অভিযোগ পাওয়ার পরেই আমরা একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছি। এই এনকোয়ারি কমিটি ইতিমধ্যেই দুবার বসেছে। প্রথমবার কী ভাবে তদন্ত হবে তার ব্লু প্রিন্ট তৈরি হয়েছে। তার পরের বার বিষয়টি যাচাই করা হয়েছে। খুব শিগগিরই কমিটি যা ব্যবস্থা নেওয়ার নেবে।

উল্লেখ্য টোসিলিজুমাব কোনও সাধারণ ইঞ্জেকশান নয়। করোনা রোগীর ক্ষেত্রে এটিকে জীবনদায়ীই বলা চলে। রোগীর শরীরে সাইটোকাইনিনের ঝড় দেখা দিলে এই ইঞ্জেকশান ব্যবহার করছেন চিকিৎসকরা। এই মুহূর্তে এক কথায় তা মহার্ঘ্য। দামও প্রচুর টোসিলিজুমাবের। এক একটি টোসিলিজুমাবের বর্তমান বাজারমূল্য ৫০-৫৬ হাজার টাকা। কালোবাজারে এই ইঞ্জেকশান দুই আড়াই লক্ষ টাকাতেও বিক্রি হচ্ছে। কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ থেকে চুরি যাওয়া ইঞ্জেকশনের বাজারমূল্য কম করে ১০ লক্ষ টাকা।

29

Leave a Reply