Categories
দেশের খবর

মুখ্যসচিবকে বদলির নির্দেশে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানাল তৃণমূল

প্রশ্ন করুন সরাসরি আজ সন্ধ্যা ৭:৩০

ওয়েবডেস্ক,মে ২৯,২০২১: মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের আচমকা বদলির নির্দেশ ঘিরে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানাল তৃণমূল। দলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ শুক্রবার রাতে এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘‘প্রতিহিংসার পথে হাঁটছে কেন্দ্র এবং বিজেপি। আমরা এর তীব্র বিরোধিতা করছি।”

তাঁর বক্তব্য, করোনা এবং ইয়াস পরিস্থিতিতে এই বদলির নির্দেশের উদ্দেশ্য শুধু পশ্চিমবঙ্গ সরকারের ক্ষতি করতে নয়, পশ্চিমবঙ্গের মানুষের ক্ষতি করা। কুণালবাবুর অভিযোগ, বিধানসভা ভোটে হেরে পশ্চিমবঙ্গবাসীর বিরুদ্ধে প্রতিশোধ নিতে চাইছে কেন্দ্র।

তিনি জানান, আলাপনের আগামী ৩১ মে পর্যন্ত কার্যকালের মেয়াদ থাকলেও রাজ্যবাসীর স্বার্থে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তা ৩ মাস বাড়ানোর জন্য কেন্দ্রের কাছে আবেদন জানিয়েছিলেন এবং সম্প্রতি নরেন্দ্র মোদীর সরকার তাতে সায়ও দিয়েছিল।

আলাপনের বদলির নির্দেশের পর সরাসরি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে বিঁধেছেন তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়। তিনি বলেন, ‘‘ভোটে হারার পরে যত রকম ভাবে নোংরামো করা যায় ওরা (বিজেপি এবং কেন্দ্রীয় সরকার) সেটাই করছে।’’

উল্লেখ্য, কলাইকুন্ডায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে প্রায় আধ ঘণ্টা অপেক্ষা করিয়ে রাখার অভিযোগ উঠেছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে। ঘটনাচক্রে, এর পরই আলাপনের বদলি নির্দেশ দেয় কেন্দ্র। তা নিয়ে কেন্দ্রীর সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিহিংসার রাজনীতির অভিযোগ করেছে তৃণমূল।

সিপিআইএমএল নেতা দীপঙ্কর ভট্টাচার্যও এই ব্যাপারে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন। টুইটারে তিনি লেখেন, “মোদী সরকার আক্রমণাত্মক সাম্রাজ্যবাদী শক্তির মতো আচরণ করছে। ঘূর্ণিঝড় বিধ্বস্ত একটি রাজ্যের মুখ্যসচিবকে দিল্লিতে টেনে আনাটা দেশের যুক্তরাষ্ট্রীয় ব্যবস্থার ইতিহাসে অত্যন্ত নিম্নরুচির। সমস্তটাই বাংলার মানুষকে শাস্তির দেওয়ার জন্য, যেখানকার মানুষজন মো-শা (নরেন্দ্র মোদী-অমিত শাহ)-এর বাংলা দখলকে রুখে দিয়েছে।”

উল্লেখ্য, আইএএস আধিকারিকেরা আদতে কেন্দ্রের অধীনেই কাজ করেন। ফলে কেন্দ্রীয় নির্দেশ মানতে বাধ্য রাজ্য। এ ক্ষেত্রে রাজ্য কেন্দ্রের সঙ্গে সংঘাতের পথে হাঁটে কি না, সেটাই দেখার।

35

Leave a Reply