Categories
দেশের খবর রাজ্য

প্রধানমন্ত্রী কে অপেক্ষা করানোর প্রতিক্রিয়া! মুখ্যসচিব আলাপন বন্দোপাধ্যায়কে তাৎক্ষণিক বদলির নির্দেশ।

ওয়েবডেস্কঃ কেন্দ্রীয় সরকার পশ্চিমবঙ্গের মুখ্য সচিব আলাপন বন্দোপাধ্যায়কে দিল্লির নর্থ ব্লকে কর্মী প্রশিক্ষণ দফতরে বদলির নির্দেশ পাঠালো। সিনিয়র আইএএস বন্দোপাধ্যায়কে দিল্লিতে রিপোর্ট করতে বলা হয়েছে। সম্প্রতি পশ্চিমবঙ্গে ঘূর্ণিঝড় ইয়াস দ্বারা ক্ষতিগ্রস্থ ব্যক্তিদের ত্রাণ কাজ সম্পর্কিত প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যমন্ত্রীদের নিয়ে পর্যালোচনা বৈঠকের বিতর্কের পরে কেন্দ্র এই সিদ্ধান্ত নিল বলে মনে করা হচ্ছে। কেন্দ্রীয় সরকারের সূত্র থেকে জানা যায় যে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং মুখ্যসচিব প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্যমূলকভাবে ৩০ মিনিটেরও বেশি সময় অপেক্ষা করিয়েছিলেন। শ্রী বন্দোপাধ্যায়কে ২০২১ সালের ৩১ মে উত্তর ব্লকের কর্মী ও প্রশিক্ষণ বিভাগে সরাসরি রিপোর্ট করতে বলা হয়েছে।

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্য সচিবের বদলির জন্য কেন্দ্রীয় সরকার তাকে একটি চিঠি পাঠিয়েছে। লেখা হয়েছে যে নিয়োগ সংক্রান্ত বিষয়ক মন্ত্রিসভা কমিটি ১৯৮৭ ক্যাডারের আইএএস আলাপ্পান বন্দোপাধ্যায়কে তাৎক্ষণিকভাবে সিদ্ধান্ত নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের দফতরে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এটি আইএএস বিধি ১৯৫৪ এর বিধি ৬ (১) এর অধীনে করা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে। বঙ্গোপধ্যায়কে দ্রুততার সাথে রাজ্যের মুখ্যসচিবের দায়িত্ব থেকে রিলিজ দিতে অনুরোধ করা হয়েছে। আলাপন বাবুর আর তিন মাস চাকরি রয়েছে। মুখ্যমন্ত্রীর ইচ্ছা ছিল তিনি শেষ পর্যন্ত রাজ্যের মুখ্যসচিবের দায়িত্ব পালন করুন। এ বিষয়ে কেন্দ্রের সম্মতিও ছিল বলে জানা যায়।

আজ সন্ধ্যে ৭:৩০

প্রসঙ্গত জানিয়ে রাখা যাক যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী গতকাল ঘূর্ণিঝড় প্রভাবিত পশ্চিমবঙ্গ এবং ওড়িশার অঞ্চলগুলিতে সফরে ছিলেন। ওড়িশার ক্ষতিগ্রস্থ অঞ্চলগুলি বিমান সমীক্ষার পরে তিনি পশ্চিমবঙ্গে পৌঁছেছিলেন। এখানে কলাইকুন্ডায় প্রধানমন্ত্রী মোদী এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মাত্র ১৫ মিনিটের জন্য বৈঠক করেছেন। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘূর্ণিঝড়ের ফলে যে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা মূল্যায়ন করতে পর্যালোচনা সভার সময় অনুপস্থিত ছিলেন।

একই সঙ্গে তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্যসভার সাংসদ সুখেন্দু শেখর রায় বলেছিলেন যে স্বাধীন ভারতের ইতিহাসে এর আগেও কি এই ঘটনা ঘটেছে? একটি রাজ্যের মুখ্যসচিবকে কেন্দ্রীয় ডেপুটেশনের জন্য বাধ্য করা হয়েছে। মোদী-শাহের নেতৃত্বে বিজেপি কতটা নিচু স্তরে যেতে পারে ভাবা যায় না! এই সমস্ত ঘটছে কারণ বাংলার জনগণ বিজেপিকে উচিত শিক্ষা দিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতায় নির্বাচিত করেছেন।

52

Leave a Reply