Categories
দেশের খবর

করোনা পরিস্থিতিতে বিভিন্ন বোর্ডের পরীক্ষা না নেওয়ার দাবি তে সর্বোচ্চ আদালতে করা মামলার শুনানি পিছিয়ে গেল!

কোভিড-১৯এর দ্বিতীয় ঢেউয়ের ধাক্কায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে দেশ। প্রতিদিন গড়ে প্রায় চার হাজার মানুষের মৃত্যু হচ্ছে কোভিডের কারণে। এই পরিস্থিতিতে পরীক্ষা বাতিল করার দাবি তুলে আইনজীবী মমতা শর্মা সুপ্রিম কোর্টে একটি জনস্বার্থ মামলা করেছেন। শুক্রবার এই মামলার শুনানি ছিল। শুনানি শুরু হওয়ার পর বিচারপতি জানতে চান তিনি তাঁর লিখিত দাবি আইসিএসই বোর্ড, সিবিএসই বোর্ড ও কেন্দ্র সরকারের কাছে পাঠিয়েছেন কিনা? উত্তরে মামলাকারী জানিয়েছেন তা এখনও হয়নি। এরপরই বিচারপতি তাঁকে তাঁর কপি আইসিএসই বোর্ড, সিবিএসই বোর্ড ও কেন্দ্র সরকারের প্রতিনিধিদের কাছে পাঠানোর নির্দেশ দেন। পাশাপাশি তিনি এও বলেন, সিবিএসই তো এখনও দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা সংক্রান্ত কোনও সিদ্ধান্ত নেয়নি। সেক্ষেত্রে এখনই এই মামলার যৌক্তিকতা নিয়েও প্রশ্ন ওঠে।

আগেই বোর্ডের তরফে জানানো হয়েছিল এ প্রসঙ্গে ১ জুন সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। পরীক্ষা নিয়ে কেন্দ্র সরকারের সঙ্গে প্রতিটি রাজ্যের সরকার এবং সিবিএসই বোর্ডের আগেই বৈঠক হয়েছে। সেখানে রাজ্যগুলির তরফে জানানো হয়েছিল, পরীক্ষা দেরিতে হলেও নেওয়ার পক্ষপাতী তারা। এক্ষেত্রে অবজেকটিভ টাইপ প্রশ্ন ও মূল বিষয়ের উপর পরীক্ষা নেওয়ার প্রস্তাবও দেওয়া হয়। সবশেষে সিদ্ধান্ত হয় ১ জুন পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

বর্তমান মহামারীর পরিস্থিতিতে শিক্ষার্থীদের সুবিধার কথা ভেবে একটি ভাষা এবং তিনটি বৈকল্পিক বিষয়ে পরীক্ষা নেওয়ার প্রস্তাবটি মন্ত্রককে জানিয়েছে বোর্ড। এর পাশাপাশি এই ৪ টি বিষয়ের নম্বর বিচার করে পঞ্চম ও ষষ্ঠ বিষয়ের ফলাফলের সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে। এই পথে পরীক্ষা নেওয়া হলে দ্বাদশ শ্রেণীর পরীক্ষার্থীদের সংক্ষিপ্ত ধরণের প্রশ্নগুলির উত্তর দিতে হবে, যার জন্য সময় মিলবে দেড় ঘণ্টা। যদিও এখনও পর্যন্ত এই বিষয়ে বোর্ড কিংবা মন্ত্রকের তরফে চূড়ান্ত ভাবে কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।

45

Leave a Reply