Categories
রাজনীতি

বিধায়ক পদে শপথ নিলেন টিএমসি’র রাজ-সোহম-জুন থেকে বিজেপি’র হিরণ-সহ ১২ তারকা

ওয়েবডেস্ক,মে ৬,২০২১: সংখ্যাগরিষ্ঠ আসনে জিতে তৃতীয়বারের জন্য বাংলার মুখ্যমন্ত্রী হয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় । বুধবারই রাজভবনে শপথবাক্য পাঠ করেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো। আর আজ বৃহস্পতিবার বিধায়ক পদে শপথ নিলেন মমতা-শিবিরের তারকাপ্রার্থী রাজ চক্রবর্তী, জুন মালিয়া, সোহম চক্রবর্তী, কাঞ্চন মল্লিক থেকে বিজেপির হিরণ চট্টোপাধ্যায়ও।

অতিমারীর জেরেই ২ দিন-ব্যাপী শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার এবং শুক্রবার বিধায়কপদে ২৯১ জনের শপথ নেওযার কথা। প্রথম দিন, অর্থাৎ আজ শপথ নিলেন রাজ্যের ৮ জেলার ১৪৩ জন বিধায়ক। তার মধ্যে রয়েছেন তৃণমূল ও বিজেপি দুই শিবিরের মোট ১২ জন তারকা। উল্লেখ্য, তাঁদের মধ্যে বেশিরভাগই এবার প্রথম বিধায়ক হয়েছেন। অন্যবার নৌসর আলি কক্ষে বিধায়কদের শপথ হয়। কিন্তু সেই কক্ষ ছোট। তাই এবার কোভিড বিধি-মাফিক সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখেই অধিবেশন কক্ষে শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান চলছে।

বৃহস্পতিবার শপথ নিলেন তৃণমূলের তারকা প্রার্থীদের মধ্যে রাজ চক্রবর্তী , লাভলি মৈত্র , অদিতি মুন্সি , কাঞ্চন মল্লিক, সোহম চক্রবর্তী , জুন মালিয়া , চিরঞ্জিত চক্রবর্তী , মনোজ তিওয়ারি এবং বিদেশ বসু-সহ বীরবাহা হাঁসদা। এঁদের মধ্যে চিরঞ্জিৎ ছাড়া বাকি প্রত্যেকেই প্রথমবারের জন্য বিধায়ক পদে শপথ নিচ্ছেন। অন্যদিকে, বিজেপির দুই তারকা হিরণ চট্টোপাধ্যায় ও অশোক দিন্দাও রয়েছেন আজকের শপথ গ্রহণের তালিকায়। সবাইকে শপথ বাক্য পাঠ করাচ্ছেন প্রোটেম স্পিকার সুব্রত মুখোপাধ্যায়।

প্রসঙ্গত, অন্য বার একসঙ্গে তিন বা চারজন বিধায়ক শপথ নিতেন। এবার কিন্তু এক একটি ব্যাচ করে শপথ গ্রহণ হবে বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিধানসভার সচিবালয়। সেই এক একটি ব্যাচে ২০-২৫ বিধায়ক থাকবেন। বৃহস্পতিবার দুই অর্ধে মোট ১৪৩ জন শপথ নিচ্ছেন। তার মধ্যে বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত কলকাতা , উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনার ৭৪ জন শপথ নেবেন। দুপুর ২টো থেকে ৪টে পর্যন্ত হাওড়া, হুগলি, পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর ও ঝাড়গ্রামের ৬৯ জন শপথ নেবেন।

শুক্রবার প্রথমার্ধে পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, পূর্ব ও পশ্চিম বর্ধমান, বীরভূম ও নদিয়ার ৭৪ জন এবং দ্বিতীয়ার্ধে কোচবিহার, আলিপুরদুয়ার, জলপাইগুড়ি, দার্জিলিং, উত্তর দিনাজপুর, দক্ষিণ দিনাজপুর, মুর্শিদাবাদ ও মালদহের ৭৪ জয়ী প্রার্থীরা শপথবাক্য পাঠ করবেন।

অন্যদিকে, প্রার্থীদের মৃত্যুর কারণে সামশেরগঞ্জ ও জঙ্গিপুরে ভোট হয়নি। আর ভোটের ফলাফল ঘোষণার আগেই খড়দহের তৃণমূল প্রার্থী কাজল সিনহা করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত হয়েছেন। ওই কেন্দ্রে যদিও তিনিই জয়ী হয়েছেন। তাই এই তিন আসন এখনও খালি রয়ে গিয়েছে।

61

Leave a Reply