Categories
রাজনীতি

” কৃষক বিল সমর্থন যোগ্য নয়, পদের পরোয়া করি না ” – সত্যপাল মালিক

১৮/৩/২০২১,

ওয়েবডেস্কঃ কৃষক বিক্ষোভ নিয়ে এবার বিজেপির অস্বস্তি অনেকটা বাড়িয়ে দিলেন মেঘালয়ের রাজ্যপাল সত্যপাল মালিক । তাঁর সাফ কথা, কেন্দ্রের উচিত দ্রুত কৃষকদের সঙ্গে আলোচনা করা। এতদিন ধরে আন্দোলন করে আসা কৃষকদের যাতে শূন্য হাতে বাড়ি ফিরে যেতে না হয়, তা নিশ্চিত করা উচিত কেন্দ্রের। একসময়ের দাপুটে বিজেপি নেতা মালিক বলছেন, কৃষকদের এই আন্দোলনের পাশেই তিনি আছেন। আর তাতে যদি তাঁকে রাজ্যপালের পদও খোয়াতে হয়, তাতেও তিনি পিছিয়ে যাবেন না।

দিন কয়েক আগেই কৃষকদের সমর্থনে কথা বলে কেন্দ্রকে চাপে ফেলে দিয়েছিলেন মালিক। তাঁর দাবি ছিল, কেন্দ্রের উচিত কৃষকদের দাবি মেনে নেওয়া। নাহলে গেরুয়া শিবিরই রাজনৈতিকভাবে তো ক্ষতিগ্রস্ত হবে। সেই মন্তব্যের ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে বুধবার শাসক শিবিরের অস্বস্তি আরও খানিকটা বাড়িয়ে দিয়েছেন মেঘালয়ের রাজ্যপাল। তাঁর সাফ কথা, “আমি কৃষকদের এই কষ্ট আর সহ্য করতে পারছি না। এমনকী বিজেপি নেতারা বাড়ি থেকে বেরতে পারছেন না। বিধায়কদের মারধর করা হচ্ছে। আমার মনে হয় কৃষকদের খালি হাতে বাড়ি পাঠানো উচিত না। সরকারের দ্রুত তাঁদের সঙ্গে আলোচনায় বসা উচিত।”

মেঘালয়ের রাজ্যপাল বলছেন,”একটা কুকুর মারা গেলেও মানুষ শোকপ্রকাশ করেন। অথচ, ২৫০ জনের বেশি কৃষকের মৃত্যুতেও কেউ একটা শব্দও খরচ করল না। এভাবে আন্দোলন চলতে থাকলে হরিয়ানা, রাজস্থান এবং পশ্চিম উত্তরপ্রদেশে বিজেপির বড় ক্ষতি হবে।” সত্যপাল মালিক বলছেন, এই মন্তব্যের পর যদি তাঁকে পদও ছেড়ে দিতে হয়, তাতেও ক্ষতি নেই। তাঁর কথায়,”অনেকে বলতে পারেন আমি এই মন্তব্য করে বিজেপির ক্ষতি করছি। কারও যদি এরকম মনে হয়, তাহলে আমাকে পদ থেকে সরিয়ে দিতেই পারে। কিন্তু আমি দলের ক্ষতি করছি না। যারা এই সমস্যার সমাধান চাইছে না, আসলে তাঁরাই দলের ক্ষতি করছে।”

” কৃষক বিল সমর্থন যোগ্য নয়, পদের পরোয়া করি না ” – সত্যপাল মালিক

ওয়েবডেস্কঃ কৃষক বিক্ষোভ নিয়ে এবার বিজেপির অস্বস্তি অনেকটা বাড়িয়ে দিলেন মেঘালয়ের রাজ্যপাল সত্যপাল মালিক । তাঁর সাফ কথা, কেন্দ্রের উচিত দ্রুত কৃষকদের সঙ্গে আলোচনা করা। এতদিন ধরে আন্দোলন করে আসা কৃষকদের যাতে শূন্য হাতে বাড়ি ফিরে যেতে না হয়, তা নিশ্চিত করা উচিত কেন্দ্রের। একসময়ের দাপুটে বিজেপি নেতা মালিক বলছেন, কৃষকদের এই আন্দোলনের পাশেই তিনি আছেন। আর তাতে যদি তাঁকে রাজ্যপালের পদও খোয়াতে হয়, তাতেও তিনি পিছিয়ে যাবেন না।

দিন কয়েক আগেই কৃষকদের সমর্থনে কথা বলে কেন্দ্রকে চাপে ফেলে দিয়েছিলেন মালিক। তাঁর দাবি ছিল, কেন্দ্রের উচিত কৃষকদের দাবি মেনে নেওয়া। নাহলে গেরুয়া শিবিরই রাজনৈতিকভাবে তো ক্ষতিগ্রস্ত হবে। সেই মন্তব্যের ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে বুধবার শাসক শিবিরের অস্বস্তি আরও খানিকটা বাড়িয়ে দিয়েছেন মেঘালয়ের রাজ্যপাল। তাঁর সাফ কথা, “আমি কৃষকদের এই কষ্ট আর সহ্য করতে পারছি না। এমনকী বিজেপি নেতারা বাড়ি থেকে বেরতে পারছেন না। বিধায়কদের মারধর করা হচ্ছে। আমার মনে হয় কৃষকদের খালি হাতে বাড়ি পাঠানো উচিত না। সরকারের দ্রুত তাঁদের সঙ্গে আলোচনায় বসা উচিত।”

মেঘালয়ের রাজ্যপাল বলছেন,”একটা কুকুর মারা গেলেও মানুষ শোকপ্রকাশ করেন। অথচ, ২৫০ জনের বেশি কৃষকের মৃত্যুতেও কেউ একটা শব্দও খরচ করল না। এভাবে আন্দোলন চলতে থাকলে হরিয়ানা, রাজস্থান এবং পশ্চিম উত্তরপ্রদেশে বিজেপির বড় ক্ষতি হবে।” সত্যপাল মালিক বলছেন, এই মন্তব্যের পর যদি তাঁকে পদও ছেড়ে দিতে হয়, তাতেও ক্ষতি নেই। তাঁর কথায়,”অনেকে বলতে পারেন আমি এই মন্তব্য করে বিজেপির ক্ষতি করছি। কারও যদি এরকম মনে হয়, তাহলে আমাকে পদ থেকে সরিয়ে দিতেই পারে। কিন্তু আমি দলের ক্ষতি করছি না। যারা এই সমস্যার সমাধান চাইছে না, আসলে তাঁরাই দলের ক্ষতি করছে।”

37

Leave a Reply