ওয়েবডেস্ক,ইসলামপুর ৫ মার্চ : নাবালিকা গৃহবধূকে গলায় ফাঁস লাগিয়ে খুন করে শ্বশুর বাড়িতেই কবরস্থ করার চেষ্টার অভিযোগে চোপড়া থানা শীতলা পুর গ্রামে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে। গ্রামবাসীদের থেকে ঘটনার খবর পেয়ে নাবালিকার পরিবারের সদস্যরা মৃতদেহ উদ্ধার করে সুবিচারের আশায় চোপড়া থানায় উপস্থিত হয়েছে। স্বামীসহ শ্বশুরবাড়ির লোকেদের কঠোর শাস্তির দাবিতে মূলত নাবালিকার পরিবার সরব হয়েছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে চোপড়া থানার পুলিশ। মৃত নাবালিকার পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, গত দুমাস আগে ইসলামপুর থানার রামগঞ্জ ইলুয়াবাড়ি এলাকার বাসিন্দা হাসিবুলের নাবালিকা মেয়ে মিলি খাতুন (১৪) এর সাথে চোপড়া থানার কালিগঞ্জ শিতলাপুর গ্রামের বাসিন্দা হাফিজুদ্দিনের ছেলে মহম্মদ সাখীর সাথে ভালোবাসার সম্পর্ক গড়ে ওঠে। প্রেমে পড়ে দু’জনে বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। প্রায় দিন ১৫ বাড়ির বাইরে থাকার পর বাড়ি ফিরে এসে গ্রামের মানুষের উপস্থিতিতে দু’পক্ষের সমঝোতায় বিয়ের সিদ্ধান্ত হয়। বিয়ের সময় পণ বাবদ মিলির বাবা আড়াই লক্ষ টাকা দিয়েছিল। কিন্তু বিয়ের দু’মাস পেরোতেই শ্বশুরবাড়িতে নাবালিকা গৃহবধূকে গলায় ফাঁস দিয়ে খুন করার অভিযোগে তীব্র ক্ষুব্ধ নাবালিকার পরিবার। মৃতার কাকা তসিরুদ্দিন জানিয়েছেন, আমাদের মেয়েকে খুন করে ওই বাড়িতেই মাটিতে পুঁতে দেওয়ার স্বামী সহ শ্বশুরবাড়ির লোকেদের পরিকল্পনা ছিল। স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকেরা পালিয়ে গিয়েছে। আমরা ওদের কঠোর শাস্তির দাবী করছি।

60